দিন এসেছে হিংসা ভুলে সামনে এগিয়ে চলার: অর্থমন্ত্রী

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:১১, জুন ০১, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১৪, জুন ০১, ২০১৭

 

জাতীয় সংসদে বাজেট পেশ করছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতজাতীয় সংসদে নতুন অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেছেন, দিন এসেছে দল, মত, হিংসা-বিদ্বেষ ভুলে সকলে মিলে সামনে এগিয়ে চলার। আসুন, ২০৪১ সালের সমৃদ্ধ, উন্নত, সুখী ও শান্তিময় বাংলাদেশের জন্যে প্রস্তুতি নেই । সময় এসেছে সাহসী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আলোর পথে অভিযাত্রার।  

বৃহস্পতিবার সংসদে ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় এসব কথা বলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বাজেট বক্তৃতায় তিনি আরও  বলেন, ‘২০০৯ সাল থেকে ভোটের লড়াইয়ে জয়যুক্ত হয়ে আমরা আবার জনসেবার সুযোগ পাই। আবার জনকল্যাণ হয় আমাদের জাতীয় ব্রত। নিরবিচ্ছিন্নভাবে পরবর্তী নয় বছরে আমাদের পরিকল্পনা, প্রস্তুতি ও উন্নয়ন কৌশল আমাদের বর্তমান অবস্থানে নিয়ে এসেছে।’ তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর তিরোধানের একুশ বছর পর আমরা সুষ্ঠুভাবে দেশ পুনর্গঠনের কাজে লিপ্ত হই। কিন্তু পাঁচ বছর শেষে আমরা আবার প্রতিক্রিয়াশীল শক্তির নির্যাতনের শিকার হই।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘সুশাসনের জন্যে আমরা অনেক বাধা বিপত্তির মোকাবিলা করেছি।’

মুহিত বলেন, ‘কে ভেবেছিল এদেশে রাজাকাররা ফাঁসিতে ঝুলবে? কে বিশ্বাস করেছিল  যে, বঙ্গবন্ধুর খুনীদের বিচার হবে? প্রধানমন্ত্রী অসম্ভবকে সম্ভব করে তুলেছেন। আমরা কি কখনও ভেবেছি যে, আমরা ভিক্ষার ঝুলিকে এত দ্রুত ছেটে ফেলতে পারব? নিজস্ব অর্থায়নে কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে পারব? পদ্মা সেতু নির্মাণ করতে পারব? শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা সমৃদ্ধির পথে হাঁটছি। সোনা ছড়ানো সমৃদ্ধি আমাদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে। সময় এসেছে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আলোর পথে অভিযাত্রার।’

তিনি বলেন, ‘২০৪১ লক্ষ্য অর্জনের জন্যে আমাদের ৮-১০ শতাংশ হারে প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে হবে। এজন্যে উৎপাদনের উপকরণ পুঞ্জিভূতকরণের পাশাপাশি এগুলোর উৎপাদনশীলতা বাড়াতে হবে ব্যাপকভাবে। নতুন প্রযুক্তি ও উন্নত ব্যবস্থাপনার আওতায় দেশের উৎপাদন প্রক্রিয়ায় আনতে হবে বৈপ্লবিক পরিবর্তন। এজন্যে প্রশাসনিক সংস্কারের মাধ্যমে সুশাসন প্রতিষ্ঠার বর্তমান ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। গড়ে তুলতে হবে কার্যকর মানব-মূলধন মজুত। কণ্টকমুক্ত রাখতে হবে ব্যক্তিখাত বিকাশের পথকে। তদুপরি আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সম্প্রসারণের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। এসব কাজ পরিকল্পিত উপায়ে সম্পাদনের জন্যে আমরা রূপকল্প ২০৪১ এর আওতায় প্রণয়ন করতে যাচ্ছি দ্বিতীয় প্রেক্ষিত পরিকল্পনা। এর স্বপ্নমূলে থাকবে একটি শান্তিপ্রিয়, উন্নত, ক্ষুধা ও দরিদ্রমুক্ত সুস্থ সবল আলোকময় বাংলাদেশ।    

/পিএইচসি/  এপিএইচ/

আরও পড়ুন:

বাজেটে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ৭ দশমিক ৪ শতাংশ

বাজেটে মূল্যস্ফীতি ৫ দশমিক ৫ শতাংশ 

সংসদে ৪ লাখ ২৬৬ কোটি টাকার বাজেট

মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ১০ হাজার ফ্ল্যাটের ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর

বাড়ছে না করমুক্ত আয়সীমা

‘উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশ: সময় এখন আমাদের’

ভ্যাট ১৫ শতাংশই, বাড়ছে অব্যাহতির আওতা

 

লাইভ

টপ