এলএনজি এলে কম দামে গ্যাস সরবরাহ সম্ভব নয়: অর্থমন্ত্রী

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:৪১, মার্চ ১৩, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৪৫, মার্চ ১৩, ২০১৮

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত (ফাইল ছবি)অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘এলএনজি আসার পর গ্যাসের দাম কিছুটা বাড়াতে হবে, সরকারের কিছুটা ভর্তুকিও দিতে হবে। আগের মতো আর কম দামে গ্যাস সরবরাহ করা সম্ভব হবে না।’

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) ১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে অর্থমন্ত্রী একথা বলেন।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী। অন্যদের মধ্যে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, বিইআরসির চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মোহাম্মদ ফয়েজউল্লাহ, বুয়েটের অধ্যাপক ড. ম. তামিম, কনজুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) প্রেসিডেন্ট গোলাম রহমান বক্তব্য রাখেন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিইআরসির সদস্য মিজানুর রহমান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বিদ্যুৎখাত থেকে সরবরাহ মূল্যে গ্যাসের দাম আদায় করাও সম্ভব হবে না। সুতরাং গ্যাস ও বিদ্যুৎখাতে ভর্তুকি দিতে হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই বিষয়গুলো পর্যালোচনা করার জন্য একজন অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি কাজ করছে। কমিটি বাজেটের আগে প্রতিবেদন দেবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘বিদ্যুৎ ও জ্বালানিতে সবসময়ই ভর্তুকি ছিল। যে সরকারই আসুক, এই ভর্তুকি বন্ধ করতে পারবে না। আগামী বাজেটেও আমাদের এই ভর্তুকি অব্যহত থাকবে।’

তৌফিক-ই-ইলাহী বলেন, ‘বিইআরসি কোনও স্বাধীন প্রতিষ্ঠান নয়। এটা স্বতন্ত্র প্রতিষ্ঠান, তা সবার মনে রাখতে হবে। সরকার আইন করে এই প্রতিষ্ঠান সৃষ্টি করেছে। তবে স্বতন্ত্র প্রতিষ্ঠান হিসেবে থাকলেও তাদের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য যেন যথাযথ বাস্তবায়ন করা যায় সেটা লক্ষ্য রাখতে হবে।’

ম. তামিম বলেন, ‘বিইআরসির প্রতি কারও আস্থা নেই। তারা সরকারি এজেন্ডা বাস্তবায়ন করে।’ আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে দেশের বাজারে জ্বালানির মূল্য সমন্বয় করতে হবে উল্লেখ করে এ বিষয়ে সরকারকে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

 

/এসএনএস/এএম/

লাইভ

টপ