চাহিদা বেড়েছে মার্সেল পণ্যের

Send
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত : ১৩:১০, জুন ০৫, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:১৬, জুন ০৫, ২০১৮

মার্সেলঈদুল ফিতর ও বিশ্বকাপ ফুটবলকে কেন্দ্র করে চাঙা হয়ে উঠেছে দেশের ইলেকট্রনিক্স পণ্যের বাজার। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে অসহনীয় গরম। ফলে উল্লেখযোগ্যহারে বেড়েছে ফ্রিজ ও এসির চাহিদা। গত রমজানের তুলনায় এবার মার্সেল ফ্রিজ, এয়ার কন্ডিশনার  (এসি) এবং এলইডি টেলিভিশনের বিক্রি ৪০ শতাংশ বেড়েছে। প্রবৃদ্ধির এই ধারাবাহিকতায় এবারের ঈদে দ্বিগুণ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট নিয়েছে মার্সেল।

সংশ্লিষ্টদের মতে, ফ্রিজ, টিভি কিংবা এসির মতো পণ্য কিনতে গেলে তিনটি বিষয় বিবেচনায় নিতে হয়। পণ্যের উচ্চমান, সাশ্রয়ী মূল্য এবং বিক্রয়োত্তর সেবা। এসব বিবেচনায় বিদেশি ব্র্যান্ডের তুলনায় দেশীয় ব্র্যান্ডের প্রতি ক্রেতাদের আকর্ষণ বেশি। বিশেষ করে মার্সেল পণ্যের প্রতি ক্রেতাদের আস্থা এখন শতভাগ।

মার্সেলের বিপণন বিভাগের প্রধান ড. মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, গত ঈদের তুলনায় এবার ঈদে দ্বিগুণ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট নিয়েছেন তারা। এই ঈদে মার্সেলের টার্গেট ৩০ হাজার ইউনিট ফ্রিজ বিক্রি করা। যা গত ঈদে ছিল ১৫ হাজার। ইতোমধ্যে ফ্রিজ বিক্রিতে ৪০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। বিক্রয়ের এই ধারা অব্যাহত থাকলে ঈদের অনেক আগেই লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে তিনি আশাবাদী।

জানা গেছে, ঈদে দ্বিগুণ বিক্রির টার্গেট পূরণে এবং রমজান মাসের বাড়তি ক্রেতাচাহিদা মেটাতে মার্সেল বাজারে ছেড়েছে অর্ধ-শতাধিক বৈচিত্র্যময় মডেলের ফ্রিজ। এর মধ্যে রয়েছে ৫২ মডেলের ফ্রস্ট, ২ মডেলের নন-ফ্রস্ট ও ১২ মডেলের ডিপ ফ্রিজ। নতুন এসেছে টেম্পারড গ্লাস ডোরের ১১টি বৈচিত্র্যময় মডেলের ফ্রস্ট ফ্রিজসহ ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইনভার্টার প্রযুক্তির কম্প্রেসার সম্বলিত ২ মডেলের নন-ফ্রস্ট রেফ্রিজারেটর। মার্সেলের এসব রেফ্রিজারেটরে ব্যবহার করা হয়েছে বিশ্বস্বীকৃত সম্পূর্ণ পরিবেশবান্ধব এইচএফসি গ্যাসমুক্ত আর৬০০এ রেফ্রিজারেন্ট। সাধারণ প্রযুক্তির ফ্রিজের তুলনায় মার্সেলের এসব ফ্রিজ ৬০ শতাংশ পর্যন্ত বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী।

এদিকে, রমজান মাসে গরমের তীব্রতা বৃদ্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে এসির বিক্রি। স্থানীয় বাজারে মার্সেলের রয়েছে ১১ মডেলের বৈচিত্র্যময় ডিজাইনের এসি। যার মধ্যে আছে ১২,০০০ বিটিইউ বা ১ টনের এসি, ১৮,০০০ বিটিইউ বা ১.৫ টনের আয়োনাইজার ও ইনভার্টার প্রযুক্তির এসি, ধূলা-ময়লা ও ব্যাকটেরিয়ামুক্ত বাতাস প্রবাহে আয়োনাইজার প্রযুক্তির ১.৫ এবং ২ টনের এসি।

মার্সেল টেলিভিশন সেলস বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষ্যে গত রমজান মাসের চেয়ে এবার তিনগুণ বেশি বিক্রি হচ্ছে মার্সেল টিভি। 

/এসএসএ/

লাইভ

টপ