বহুতল ভবনগুলো বিমার আওতায় আনার আহ্বান

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:১৫, এপ্রিল ০৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৩, এপ্রিল ০৩, ২০১৯

এফ আর টাওয়ারঢাকা শহরসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় নির্মিত এবং নির্মীয়মান বড় বড় ভবনগুলোকে বাধ্যতামূলকভাবে বিমার আওতায় আনার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট শেখ কবির হোসেন। বুধবার (৩ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে তিনি এই আহ্বান জানান।

শেখ কবির হোসেন দাবি করেন, ‘ভবনের বাধ্যতামূলক বিমা করার সিদ্ধান্ত হলে সিটি করপোরেশন ট্রেড লাইসেন্স এবং হোল্ডিং ট্যাক্স নবায়নের সময় বিষয়টি মনিটর করতে পারে। ঢাকা শহরসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় নির্মিত এবং নির্মীয়মান বড় বড় ভবনগুলো বাধ্যতামূলকভাবে ইন্স্যুরেন্সের আওতায় আনার জন্য সরকারের বিভিন্ন মহলের নিকট আবেদন জানিয়ে আসা হচ্ছে। প্রতিটি ভবন বীমার আওতায় থাকলে ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিগুলো ভবনের প্রয়োজনীয় তথ্যাদি ঠিক আছে কিনা, তা যাচাই করার সুযোগ পেত। রাজউকের অনুমোদন থেকে অগ্নি নির্বাপণের প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম আছে কিনা কিংবা বিপদকালীন সময়ে জরুরি নির্গমনের ব্যবস্থাদি রয়েছে কিনা, তা ঠিকভাবে অনুসন্ধান করে বিমার আওতায় আনা যেত এবং ব্যবহারকারীরাও সচেতন হতো। এতে করে ভবন ব্যবহারকারীরা যেমন উপকৃত হতেন, তেমনি অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনায় ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ বহুলাংশে কমে যেত এবং সরকারের রাজস্ব আয়ও বৃদ্ধি পেত।’

বহুতল (হাইরাইজ) ভবনগুলো ইন্স্যুরেন্সের আওতায় থাকলে ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিগুলো ভবন মালিকদের ক্ষতির পরিমাণ পুষিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করতে পারত। এতে করে সরকারের রাজস্ব তথা দেশের অর্থনীতি ও জানমালের ক্ষতি অনেকাংশে কমে যেত। আর ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের দুঃসময়ে বিমা কোম্পানিগুলো ক্ষতিপূরণের মাধ্যমে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ পেত বলে দাবি শেখ কবির হোসেনের। তাই দেশের প্রতিটি ভবন বিশেষ করে বহুতল (হাইরাইজ) ভবনগুলো বাধ্যতামূলকভাবে বিমার আওতায় আনার জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট পুনরায় বিআইএয়ের প্রেসিডেন্ট শেখ কবির হোসেন দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

 

/জিএম/এনআই/

লাইভ

টপ