প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো অপরিহার্য: নসরুল হামিদ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:২৬, এপ্রিল ১০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩৯, এপ্রিল ১০, ২০১৯

উন্নয়নের জন্য অ্যাডহক ভিত্তিতে নয়, সমন্বিত প্রকল্প গ্রহণ আহ্বান জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। তিনি বলেছেন, ‘সিদ্ধান্ত ও উন্নয়ন একই সূত্রে গাথা। দ্রুত সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিতে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো অপরিহার্য। গতানুগতিক চিন্তা বাদ দিয়ে মানুষের সেবায় কীভাবে আরও মনোনিবেশ করা যায়, সেই চিন্তা করতে হবে। শুধু বিদ্যুৎ উৎপাদনই নয়, উৎপাদিত বিদ্যুৎ মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়ে গ্রাহক সন্তুষ্টি অর্জন করতে হবে।’

বুধবার (১০ এপ্রিল) বিদ্যুৎ ভবনে আয়োজিত ‘ইনোভেশন শোকেসিং-২০১৯’ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বীর বিক্রম বলেছেন, ‘বিদ্যুৎ বিভাগের উদ্ভাবনী কর্মসূচি মানুষের আস্থা বাড়িয়েছে। বস্তি এলাকায় দ্রুত বিদ্যুৎ সংযোগ কিংবা আলোর ফেরিওয়ালা কর্মসূচি এই আস্থাকে সুসংহত করেছে।’

অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ বিভাগ জানায়, এবারের ইনোভেশন শোকেসিং-এ ১১টি উদ্ভাবনকে নির্বাচন করা হয়েছে। উৎপাদন-সঞ্চালন এবং বিতরণে কীভাবে আরও গ্রাহক তুষ্টি অর্জন করা যায়, সেই লক্ষ্যকে সামনে নিয়ে এবারের ইনোভেশন শোকেসিং আয়োজন করা হয়েছে।

ইনোভেশন শোকেসিং-এর আলোচনায় সহজ সেবার বিষয়টি গুরুত্ব পেয়েছে। এখন অনলাইনে সব সেবা নেওয়া গেলেও বিদ্যুতে তা চলছে আংশিক মাত্রায়। উদাহরণ হিসেবে বলা হচ্ছে, বিদ্যুৎ সংযোগের আবেদনের কথা। সংযোগের জন্য আবেদন অনলাইনে করা হলেও পরে ঘুরতে হচ্ছে টেবিলে টেবিলে। আংশিক অনলাইন সেবার বদলে পুরো প্রক্রিয়া অনলাইনে করার উদ্যোগের কথা বলা হয়েছে। এছাড়া বিদ্যুৎ বিল দেওয়ার ক্ষেত্রেও গ্রাহকদের শতভাগ অনলাইন সেবার আওতায় আনার কথাও বলা হয়।  

বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব (সমন্বয় ও সংস্থাপন) ড. মো. শামসুল আরেফিন ও বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মাকসুদা বেগম।

 

 

/এসএনএস/এএইচ/

লাইভ

টপ