না বুঝে একটি সংবাদমাধ্যম গ্যাস রফতানির কথা বলেছে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০৮:৩৭, অক্টোবর ০৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৮:৪৩, অক্টোবর ০৮, ২০১৯

নসরুল হামিদ (ফাইল ছবি)

বিদ্যুৎ জ্বালানি খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, না বুঝে একটি সংবাদমাধ্যম বাংলাদেশ থেকে গ্যাস রফতানির কথা বলছে। শেখ হাসিনার ভারত সফরে আসলে এ ধরনের কোনও চুক্তি হয়নি। যেটা হয়েছে তা হচ্ছে— ভারত বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে এলপিজি আমদানির জন্য একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই করেছে। এই সমঝোতার আলোকে বাংলাদেশে একটি এলপিজি প্ল্যান্ট স্থাপন করা হবে। সেখান থেকে ত্রিপুরা এলপিজি নেবে। প্রতিমন্ত্রী সোমবার (৭ অক্টোবর) নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে বাংলাদেশ থেকে গ্যাস রফতানি করা হবে উল্লেখ করে বিবিসি বাংলা একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। পরে ওই প্রতিবেদনটিতে তথ্যগত ভুল রয়েছে উল্লেখ করে বিবিসি তা প্রত্যাহারও করে নেয়।

এই খবরের পরিপ্রেক্ষিতে রবিবার বুয়েটে পিটিয়ে মেরে ফেলা শিক্ষার্থী আবরারও তার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেই স্ট্যাটাসের জের ধরেই তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বিপু বলেন, ‘এ ধরনের সংবাদ প্রকাশের আগে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলেই বিভ্রান্তি দূর হয়। অথবা দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী যে যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন, সেখানের ভিডিও রয়েছে। সেটি দেখলেও এ ধরনের বিভ্রান্তি দূর হওয়া সম্ভব ছিল।’

দেশে বিভিন্ন মহলে বিশেষ করে রাজনৈতিক অঙ্গন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ বিষয়ে সমালোচনা হচ্ছে, যার প্রতিক্রিয়ায় মন্ত্রী বলেন, ‘রাজনীতিবিদদের সামনে এখন আর কোনও ইস্যু নেই। তারা সব সময়ই ইস্যুর সন্ধানে থাকেন।’ অন্যদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারাই এ ধরনের অপপ্রচার চালাচ্ছেন, তাদের প্রকৃত বিষয় জেনে সমালোচনার আহ্বান জানান প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘বিএনপির সময়ে যখন গ্যাস রফতানির কথা বলা হয়েছিল, তখনই শেখ হাসিনা বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে দেশের গ্যাস রফতানির বিরোধিতা করেছিলেন। তখন গ্যাস রফতানি করার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের চাপ ছিল। এখন আমাদের নিজেদের গ্যাসই ফুরিয়ে এসেছে। আমরাই গ্যাস আমদানি করি। আমাদের নিজেদেরই যেখানে চাহিদা পূরণ হয় না, সেখানে আমরা ভারতকে কীভাবে গ্যাস দেবো।’

প্রতিমন্ত্রী জানান, আমাদের দেশ থেকে এখন নেপাল এবং ত্রিপুরাতে এলপিজি রফতানি করছে বেসরকারি উদ্যোক্তারা। সই হওয়া এমওইউ বেসরকারিখাতের সম্প্রসারণের জন্য সুবিধাজনক বলে উল্লেখ করেন তিনি।

/এসএনএস/এপিএইচ/

লাইভ

টপ