চার প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:১৪, মার্চ ২৭, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৮, মার্চ ২৭, ২০১৬

বাংলাদেশ ব্যাংকরিজার্ভ থেকে চুরি যাওয়া টাকা ফেরত আনতে চিঠি চালাচালি শুরু করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর মধ্যে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধির কাছে। এছাড়া চিঠি দেওয়া হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকের চেয়ারম্যান, ফিলিপাইনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ও ফিলিপাইনের অ্যান্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিলের (এএমএলসি) প্রধানকে। এ তথ্য জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা।
রবিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপকদের সঙ্গে গভর্নর ফজলে কবিরের বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।
শুভঙ্কর সাহা বলেন, চুরি যাওয়া টাকা ফেরত আনতে যেখানে চিঠি দেওয়া দরকার বাংলাদেশ ব্যাংক সেইসব জায়গায় চিঠি দিয়েছে।
এর আগে গভর্নর ফজলে কবির বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সব বিভাগের মহাব্যবস্থাপকদের সঙ্গে। বৈঠকে ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহাম্মদ রাজী হাসান ও এসকে সুর চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠকে মহাব্যবস্থাপকদের উদ্দেশে ফজলে কবির বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিরাপত্তার বিষয়কে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে সব কর্মকর্তাকে কাজ করতে হবে। সম্পূর্ণ পেশাদারিত্বের সঙ্গে কাজ করতে হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক সর্ম্পকে মানুষের মধ্যে যেন নেতিবাচক ধারণা তৈরি না হয় সে ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।
প্রসঙ্গত এর আগে, দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ও অ্যাটার্নি জেনারেলকে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। চিঠিতে টাকা ফেরত আনার ক্ষেত্রে এই দুটি প্রতিষ্ঠানের সার্বিক সহায়তা চাওয়া হয়েছে।

এর বাইরে প্রয়োজনীয় নথি পর্যালোচনা ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য এরই মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার আজমালুল হক কিউসিকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার আজমালুল হক কিউসিকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তিনি আইনানুগ বিষয়গুলোকে অ্যাসেস করবেন।

/জিএম/এজে/

লাইভ

টপ