বাজেট পেশ ২ জুন, এডিপি ১ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:০৭, এপ্রিল ০৭, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১৪, এপ্রিল ০৭, ২০১৬




অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতঅর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন,২০১৬-১৭ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মেগা প্রকল্প ও ক্যাপিটাল নামে দু’টি আলাদা বাজেট করার চিন্তা রয়েছে। আর  বাজেটে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) পরিমাণ হবে ১ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকা।অন্যদিকে, মূল বাজেটের আকার হতে পারে ৩ লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকা।
বৃহস্পতিবার রাজধানীর মতিঝিলে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এমসিসিআই)সঙ্গে আয়োজিত প্রাক-বাজেট আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী এ কথা বলেন। আলোচনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর)  চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।
আগামী ২ জুন বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করা হবে। পরের দিন শুক্রবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলন করবেন অর্থমন্ত্রী।
অর্থমন্ত্রী বলেন, আগামী বাজেট উচ্চবিলাসী হবে না। কারণ আমাদের বাজেটের আকার হয় মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ১৭ থেকে ১৮ শতাংশ। বাজেটের আকার জিডিপির ২৫ শতাংশ পর্যন্ত ঘোষণা করার সুযোগ আছে।
|তিনি বলেন, মেগা প্রকল্পের জন্য বাজেটে আলাদা বরাদ্দ থাকবে, যা সরকারি- বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেওয়া হবে। আমরা চেষ্টা করবো মেগা প্রকল্পের জন্য আলাদা বাজেট প্রণয়নের। এছাড়া বিদ্যুৎচালিত গাড়ির (ইলেকট্রনিক ভেহিক্যালে) ব্যবহারের সুযোগ থাকবে এবারের বাজেটে। এই সময় ২০১৭ সালে শুল্ক আইন ও ২০১৮ সালে সরাসরি আয়কর আইন প্রণয়ন করা হবে বলে জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এনবিআর চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান বলেন, রাজস্ব বোর্ডের দক্ষতা বাড়াতে অটোমেশন করা হবে।ইতোমধ্যে ভ্যাট অনলাইন প্রণয়ন করা হয়েছে। এটিকে আরও জনপ্রিয় করার উদ্যোগ নেওয়া হবে।
অনুষ্ঠানে মেট্রোপলিটন চেম্বারের সভাপতি নাসিম মঞ্জুর বলেন,আমাদের শিল্পে নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার খুবই ব্যয়বহুল, যা শিল্পের বিস্তারে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। নতুন প্রযুক্তির ব্যবহারের ক্ষেত্রে ব্যয় কমানোর আহ্বান জানান তিনি।
/এসআই/ এমএসএম/

লাইভ

টপ