Vision  ad on bangla Tribune

বাংলার বিভ্রাট

মাহমুদুর রহমান১৯:৫৪, ডিসেম্বর ১১, ২০১৫

কিছুটা ঊষ্মার সঙ্গে এক পিতা তার সন্তানদের বললেন, “ইংরেজিটাও শিখলি না, মায়ের ভাষাও জলাঞ্জলি দিলি”, সন্তান ফ্যাল-ফ্যাল করে তাকিয়ে রইল। বিষয়টি ছিল মধ্য বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল। Mahmudur Rahman_edited
চাটুং চুটুং ইংরেজি বলা এবং ইংরেজি মাধ্যমে পড়া সন্তান ইংরেজিতে ৭০-এর ঘরে এবং বাংলায় ৫০-এর ঘরে নম্বর পেয়েছে। ‘কিন্তু আব্বু, আমি তো ডাক্তার হয়ে বিদেশে যাব। বাংলা দিয়ে কি করব?’ এরপর ভাষা, কৃষ্টি, সংস্কৃতি নিয়ে চলে পিতার দীর্ঘ স্বগতোক্তি।
নতুন এই প্রজন্ম আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় মাতৃভাষার কোনও স্থান দেখতে পায় না। কারণ সত্যিকার অর্থে সে রকম কোনও স্থান নেই। গৌরবগাঁথা, মায়ায় ভরা শুধু বাংলা কেন, বহু দেশের ভাষার মহত্ব আজ বিপন্ন। বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রমের গুণগত মান এমনিতেই হিমশিম খাচ্ছে। এই অবস্থায় বাংলায় বিজ্ঞানচর্চা হুমকিতে পড়ারই কথা। অথচ চীন ও রাশিয়া তাদের মতো করে বিজ্ঞানচর্চাই শুধু করেনি, বিশ্বশক্তি হয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।
সমস্যার মূলে রয়েছে উচ্চশিক্ষা। যেসব দেশ উচ্চশিক্ষার গন্তব্য, তাদের বেশিরভাগেই ইংরেজিতে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়। সেখানে Oxygen অম্লজান, আর Hydrogen উদজান বললে কোনও লাভ নেই। সাহিত্যকে জানবার জন্য অনুবাদের প্রয়োজন থাকলেও, বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয়তা নেই বললেও চলে। উইলিয়াম বাল্টার ইয়েটস যদি কবিগুরুর অবিনশ্বর চিন্তা চেতনাকে ইংরেজিতে প্রকাশের উদ্যোগ না নিতেন, নোবেল পুরস্কারটি আসতো না।
যৌক্তিকতা বলেই দেবে, উচ্চশিক্ষার ভাগ্য সবার জন্য নয়। কিন্তু কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, এমনকি সরকারি চাকরির পরীক্ষায় বাংলার যে বেহাল অবস্থা তাও কাম্য নয়। সামাজিক মাধ্যমে এবং ক্ষুদেবার্তার ভুবনে, বাংলা যেন বারবার লাঞ্ছিত, নিষ্পেষিত।
তাতে কারও ভ্রুক্ষেপ নেই। বাংলা কি বোর্ড হওয়ায় তা-ও রক্ষা, নইলে ভাষাটি চিরতরে হারিয়ে যাওয়ার সমূহ আশঙ্কা ছিল। ভুরি ভুরি উদাহরণ আছে যে, জিপিএ ৫ পাওয়া, নামী-দামী মহাবিদ্যালয়, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা আমাদেরই ছেলে-মেয়েরা বাংলা বা ইংরেজিতে তাদের স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের পণ্য-সেবার গুণাগুণ ক্রেতার কাছে তুলে ধরতে গিয়ে থমকে যায়, কারণ -এই রচনার শুরুর কথা- ‘ইংরেজিটাও শিখলে না...’।
লেখক: সিএসআর এবং কমিউনিকেশন বিশেষজ্ঞ
*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। বাংলা ট্রিবিউন-এর সম্পাদকীয় নীতি/মতের সঙ্গে লেখকের মতামতের অমিল থাকতেই পারে। তাই এখানে প্রকাশিত লেখার জন্য বাংলা ট্রিবিউন কর্তৃপক্ষ লেখকের কলামের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনও ধরনের কোনও দায় নেবে না।

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। বাংলা ট্রিবিউন-এর সম্পাদকীয় নীতি/মতের সঙ্গে লেখকের মতামতের অমিল থাকতেই পারে। তাই এখানে প্রকাশিত লেখার জন্য বাংলা ট্রিবিউন কর্তৃপক্ষ লেখকের কলামের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনও ধরনের কোনও দায় নেবে না।

লাইভ

টপ