behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

কার কোপে কার মাথা...

শুভ কিবরিয়া১৭:১০, মার্চ ২১, ২০১৬


চার.
রাজনীতিতে, রাষ্ট্র পরিচালনায় আমরা বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সময় ষড়যন্ত্রের কথা শুনি। এটা কোনও অস্বভাবিক ঘটনাও নয়। যে কোনও ছোট দেশ যখন রাজনীতি, অর্থনীতি কিংবা সামরিকভাবে অন্যদের ছাপিয়ে জেগে উঠতে চায় সেই দেশের অগ্রগতি থামানোর জন্য দেশি-বিদেশি নানা ষড়যন্ত্র সচল হতেও পারে। বাংলাদেশের ক্ষেত্রেও এই ঘটনা ঘটলে অবাক হওয়ার কিছুই নেই।
আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সাম্প্রতিক সময়ে বলেছেন, ‘দেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে সব ধরনের ষড়যন্ত্র হচ্ছে’। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই অনুভব যথেষ্ট গুরুত্ববহ। এটা বড় বিপদের ইঙ্গিত। সে কারণেই আমাদের অধিকতর সতর্ক হওয়া দরকার।
এখন প্রশ্ন হলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই অনুমান যদি সত্য বলে আমরা বিবেচনা করি তাহলে এই বিপদ থেকে পরিত্রাণের উপায় কী? আমাদের কষ্টার্জিত সকল অর্জন টেকসই করার পথ কী?
এর একমাত্র বৈধ ও নিয়মতান্ত্রিক টেকসই পথ হচ্ছে রাষ্ট্রকে তার প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতায় শক্তিমান করে তোলা। নতজানু-দলদাস-অযোগ্যদের এড়িয়ে যোগ্যতম দক্ষ মানবসম্পদ দিয়ে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে তার গঠনতান্ত্রিক নীতির ওপর সচল রাখা। যে কোনও মূল্যে, যে কোনও পরিস্থিতিতে নিয়ম-নীতিকেই মুখ্য করে তোলা। ব্যক্তি নয় প্রতিষ্ঠান চলবে তার সিস্টেমের ওপর। দুর্দিনে প্রতিষ্ঠান তার বিপদ ঠেকাবে সিস্টেমের পেশাদারিত্বে। ব্যক্তির একক কর্তৃত্বে বা কৃতিত্বে নয়, দলগত পেশাদারিত্বেই সবরকম বিপত্তির মুখে পড়বে প্রতিষ্ঠান। ব্যক্তি যদি সিস্টেমের চাইতে বড় হয়ে ওঠে সেই প্রতিষ্ঠান দুর্দিনে, চাপের মুখে দাঁড়াতে পারে না। যে কোনও সংকট এলে সে গুলিয়ে ফেলে। বিপদের দিনে শান্ত থাকার বদলে সে অস্থির হয়ে ওঠে। একে ওকে দোষারোপের সংস্কৃতি তখন বড় হয়ে ওঠে। অপরাধীর বাঁচার জন্য চালু হয় ব্যক্তিপূজার সংস্কৃতি।
পাঁচ.
যখন আমরা কোনও বিপত্তির মধ্যে পড়ছি তখন বিদ্যমান ব্যবস্থা দেখে আমরা ঠিক বুঝতে পারছি না কার কোপে কার মাথা কাটা পড়ছে। কে প্রকৃত দোষী, কার কারণে বিপত্তি ঘটছে তা বের করা সম্ভব হচ্ছে না। একটা বিপত্তির শোরগোল হারিয়ে যাচ্ছে নতুন বিপত্তির উৎপাতে। আমরা এই প্রক্রিয়ায় অভ্যস্ত হয়ে উঠছি। কিন্তু সংকট থেকে বেরুতে পারছি না। আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা কাঙ্ক্ষিত মান অর্জন করে নাই বলে আমাদের সকল অর্জন নিয়ে আমরা নিরাপদ বোধ করছি না। এই অনিরাপত্তাবোধ আমাদের প্রতিষ্ঠানকে আরও ভঙ্গুর ও বিপদাপন্ন করে তুলছে। কাজেই বাংলাদেশের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে তার প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা প্রতিষ্ঠা করা। নইলে বিপদ বাড়তে থাকবেই। কার পাপে, কার লোভে, কার কোপে, কার মাথা কাটা পড়বে তার ঠিক নেই। আর আমরাও চিলে কান নিয়ে গেলো বলে অন্ধভাবে শুধু দৌড়তেই থাকবো।
লেখক: নির্বাহী সম্পাদক, সাপ্তাহিক

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। বাংলা ট্রিবিউন-এর সম্পাদকীয় নীতি/মতের সঙ্গে লেখকের মতামতের অমিল থাকতেই পারে। তাই এখানে প্রকাশিত লেখার জন্য বাংলা ট্রিবিউন কর্তৃপক্ষ লেখকের কলামের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনও ধরনের কোনও দায় নেবে না।

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune

কলামিস্ট

টপ