পরাজিত দুই মেম্বর প্রার্থীর সমর্থকরা মুখোমুখি পাবনায় আ. লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, ১৫ গুলিবিদ্ধসহ আহত ৩০

Send
পাবনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৮:৫৮, জুন ০৬, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:০৬, জুন ০৬, ২০১৬

সংঘর্ষপাবনায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত পরাজিত দুই মেম্বর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষে ১৫ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন। সোমবার সকালে পাবনা সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের চরঘোষপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। আবারও সংঘর্ষের আশঙ্কায় এলাকায় চরম আতঙ্ক ও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ভোট নিয়ে দুগ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।  
পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, হেমায়েতপুর ইউনিয়নের চরঘোষপুরে ৪ জুন অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে দুই মেম্বর প্রার্থী বকুল সরদার (ঘুড়ি মার্কা) ও আফজাল হোসেন (মোরগ মার্কা) পরাজিত হন। সোমবার সকাল ১০টার দিকে চরঘোষপুর গ্রামে ইয়াকুব আলীর বাড়ির উপর দুই গ্রুপের সমর্থকেরা ভোট নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের লোকজন লাঠিফালা, ইট পাটকেল, রড, চাপাতি, সড়কি, ও দেশীয় বন্দুক নিয়ে একে অপরের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। প্রায় ১ ঘন্টাব্যাপী দুগ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ১৫ জন গুলিবিদ্ধসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে আলামিন (২২), নিজাম উদ্দিন (৩৫), মোস্তাফিজুর রহমান (২৫), রিপন হোসেন (২২), লিটন (২২), খালেক (৪০), মাহবুবুর রহমান (৩৫), নুর মোহাম্মদ (৩৫), রাকিবুল ইসলাম (১৯), সাইফুল ইসলাম (১৯), সাইফুল ইসলাম (৪০), মতিউর রহমান (৫০), ওমর আলী (৩২), ওয়াজেদ আলী (৩৫), মিলন হোসেন (২৬), আশরাফ হোসেনকে (৫০) গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, আহতদের মধ্যে সিরাজুল ইসলাম ও মতিয়ার রহমানের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। আবারও সংঘর্ষের আশঙ্কায় এলাকায় চরম আতঙ্ক ও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

ওসি জানান, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

আরও পড়ুন: মানিকগঞ্জে বজ্রাঘাতে দুই নারীর মৃত্যু

/এইচকে/

লাইভ

টপ