behind the news
 
Vision  ad on bangla Tribune

চাঁদা চাইতে গিয়ে গণধোলাইয়ের শিকার পুলিশ কর্মকর্তা

নেত্রকোনা প্রতিনিধি২০:০১, নভেম্বর ৩০, ২০১৬

নেত্রকোনানেত্রকোনার কলমাকান্দা থানার সহকারী উপ পরিদর্শক (এএসআই) ইমরুল কায়েস চাঁদা চাইতে গিয়ে উপজেলার ডাইয়ারকান্দা বাজারে গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন। বুধবার দুপুরে উত্তেজিত এলাকাবাসী তার গাড়ি ভাঙচুর করে এবং গায়ের জামা কাপড় ছিঁড়ে ফেলে ও হ্যান্ডকাপ ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

অভিযোগে জানা গেছে, কলমাকান্দা থানার এএসআই  ইমরুল কায়েস ও সিপাহী মোজাম্মেল সাদা পোশাকে বুধবার বেলা দেড়টার দিকে ব্যক্তিগত মোটরসাইকেলে উপজেলার রংছাতি ইউনিয়নের ডাইয়ারকান্দা বাজারে যান। এ সময় বাজারের আবু বক্করের চায়ের দোকানে স্থানীয় পাথর ব্যবসায়ী নূরুল ইসলামের ছেলে আল আমিন ও কয়েক বন্ধু মিলে আলাপ করছিলেন। এএসআই  ইমরুল কায়েস সেখানে গিয়ে আল আমিনের নামে ওয়ারেন্ট আছে জানিয়ে তার কাছে ২০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা না দিলে তাকে গ্রেফতার করা হবে বলেও জানান এএসআই। এ সময় আল  আমিন টাকা আনার কথা বলে বিষয়টি এলাকাবাসীকে জানান। জানাজানি হলে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। উত্তেজিত এলাকাবাসী এএসআই  ইমরুলের ওপর চড়াও হয় এবং তাকে বেধড়ক মারপিট করে গায়ের কাপড় ছিঁড়ে বিবস্ত্র করে ফেলে। তার মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে এবং হ্যান্ডকাপ কেড়ে নেয়। ইমরুল ও তার সঙ্গী দৌড়ে প্রাণ রক্ষা করেন।

কলমাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নেত্রকোনার পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী বলেন, ঘটনার সত্যতা জানার জন্য ঘটনাস্থলে উচ্চ পর্যায়ের একটি তদন্ত টিম পাঠানো হবে। বিষয়টি প্রমাণিত হলে দায়ীদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন:

জামিন পেলেন টাম্পাকো মালিক 

 

/বিটি/

 

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

IPDC  ad on bangla Tribune
টপ