জামিন পেলেন রসরাজ

Send
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১২:০২, জানুয়ারি ১৬, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:১০, জানুয়ারি ১৬, ২০১৭

রসরাজ দাসব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ (২) ধারার মামলায় গ্রেফতার রসরাজ দাসের (২৭) জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত। সোমবার বেলা ১১টায় জেলা ও দায়রা জজ মো. ইসমাইল হোসেনের আদালত তার জামিন মঞ্জুর করেন।

রসরাজের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট নাসির মিয়া এবং রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী ছিলেন এসএম ইউসুফ।

আইনজীভী নাসির মিয়া জানান, সোমবার (১৬ জানুয়ারি)  জামিনের বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য্য ছিল। ধার্য্য দিনে আসামি রসরাজ দাসের উপস্থিতিতে জামিনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। ফরেনসিক রিপোর্ট অনুযায়ী রসরাজ দাসের মোবাইল থেকে ধর্ম অবমাননার ছবি আপলোডের কোন প্রমান পাওয়া যায়নি। ফরেনসিক রিপোর্ট আদালতে উপস্থাপনের পর আদালত পরবর্তী পু্লিশ প্রতিবেদন দাখিল না হওয়া পর্যন্ত তার জামিন মঞ্জুর করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এসএম ইউসুফ বলেন, ‘আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি উপস্থাপন করে ঘটনায় রসরাজের সম্পৃক্ততা না থাকার প্রমান পাওয়ায় রসরাজ দাসের জামিন মঞ্জুর করেছে আদালত।’

এদিকে, রসরাজ দাসের জামিন শুনানিকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই জেলা জজ আদালতের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

এছাড়া আদালতে রসরাজের পক্ষে তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট নাসির মিয়া, হাইকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সুব্রত বর্ধন, অ্যাডভোকেট অসিম, অ্যাডভোকেট তারেক ও রাখেশ রায়সহ আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে গত বছরের ২৮ অক্টোবর রসরাজ দাসের আইডি ব্যবহার করে পবিত্র কাবা শরীফ নিয়ে একটি ব্যঙ্গচিত্র পোস্ট করা হয়। এলাকাবাসী ওই ছবি দেখে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। পরদিন ২৯ অক্টোবর ওই ঘটনায় নাসিরনগর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কাওছার হোসেন বাদী হয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭(২) ধারায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে ৩০ অক্টোবর রসরাজকে আদালতে পাঠায় পুলিশ। একই দিন এ ঘটনায় দুটি ইসলামি সংগঠন আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে নাসিরনগর উপজেলা সদরের আটটি হিন্দুপাড়ার বাড়িঘর ও মন্দিরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করা হয়।

/এমডিপি/

লাইভ

টপ