behind the news
 
Vision  ad on bangla Tribune

কুসিক নির্বাচন: ২৯ খাতে উন্নয়নের আশ্বাস সীমার

কুমিল্লা প্রতিনিধি১৫:০৮, মার্চ ২১, ২০১৭

মঙ্গলবার নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী সীমাকুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আঞ্জুম সুলতানা সীমা তার নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। মঙ্গলবার (২১ মার্চ) দুপুরে কুমিল্লা নগরীর রামঘাটলায় দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে ১৩ পৃষ্ঠার ইশতেহার পাঠ করেন নৌকা প্রতীকের এই প্রার্থী। নির্বাচিত হলে তিনি ২৯টি খাতে উন্নয়ন করবেন বলে আশ্বাস দেন। কুমিল্লাকে আধুনিক নগরী হিসেবে প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেন তিনি।

আঞ্জুম সুলতানা সীমা বলেন, ‘শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন হবে আমার প্রথম অগ্রাধিকার। নগর পরিকল্পনাবিদ ও বিশেষজ্ঞ মতামতের ভিত্তিতে, বাস্তবমুখী ও কার্যকর পদক্ষেপ নিয়ে এ শহরকে জলাবদ্ধতা থেকে মুক্ত করবো। নগরের অসহনীয় যানজট নিরসনে জনসচেতনতা বৃদ্ধি, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। প্রয়োজনে ফ্লাইওভার, ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ করা হবে। ফুটপাথসমূহ জনগণের চলাচল উপযোগী করা হবে।’

আগামী পাঁচ বছরের জন্য বর্ধিত কোনও করের বোঝা জনগণের ওপর চাপিয়ে দেওয়া হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, অতি দরিদ্রদের হোল্ডিং কর মওকুফ করা হবে।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনাক্রমে রুপকল্প ২০২১ মাথায় রেখে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের জন্য উন্নয়নের মাস্টারপ্ল্যান প্রণয়ন করা হবে। সেই পরিকল্পনা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে।’

সীমার নির্বাচনি ইশতেহারে আরও রয়েছে, সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে দুটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা, কর্মজীবী তরুণ-তরুণীদের কথা বিবেচনায় রেখে একটি নৈশ মহাবিদ্যালয় চালু, সিটি করপোরেশনের পূর্বাঞ্চলে মেয়েদের জন্য একটি মানসম্মত মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্থাপন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, একটি কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল স্থাপন।

চিকিৎসা সেবার বিষয়ে তার আশ্বাস, সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে সর্বাধুনিক সুযোগসুবিধা সম্বলিত ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু হাসপাতাল স্থাপন এবং নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে স্যাটেলাইট ক্লিনিক সমূহের চিকিৎসা সেবার পরিধি বৃদ্ধি।

সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করার অঙ্গীকার করে সীমা বলেন, ‘সরকার ও জনসাধারণের সহায়তা নিয়ে কুমিল্লার পরিছন্ন রূপটি ফিরিয়ে এনে কুমিল্লা মহানগরকে নান্দনিক শহরে পরিণত করবো। দ্রুততম সময়ের মধ্যে ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং চলাচল অনুপযোগী সড়কসমূহ সংস্কারের ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। পাশাপাশি সিটি করপোরেশনের মালিকানাধীন সব কাঁচা সড়ক পর্যায়ক্রমে পাকা করার ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

কুমিল্লায় আন্তর্জাতিক মানের একটি স্টেডিযাম নির্মাণ, আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের সুবিধার কথা বিবেচনায় রেখে ৫ তারকা হোটেল স্থাপনে জমি বরাদ্দ করে সহযোগিতা করার অঙ্গীকার করেছেন সীমা। তিনি বলেন, ‘কুমিল্লার খ্যাতিমান ব্যক্তি ও মুক্তিযোদ্ধাদের নামে নগরের বিভিন্ন সড়ক সমূহের নামকরণ করা হবে। মাদকমুক্ত কুমিল্লা গঠনে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। সন্ত্রাসমুক্ত নগর গঠনকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। ইভটিজিং এর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রত্যেক নাগরিকের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা হবে।’

সীমার নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণার সময় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও মেয়র নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কাজী জাফর উল্লাহ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সাবেদ প্রশাসক ওমর ফারুক, কুমিল্লা দক্ষিণ উপজেলার চেয়ারম্যান গোলাম সারওয়ার ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা আরফানুল হক রিফাত উপস্থিত ছিলেন।

/এফএস/ 

আরও পড়ুন- 


বেসরকারিভাবে ২ লাখ ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি তৈরির উদ্যোগ

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

IPDC  ad on bangla Tribune
টপ