behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

ঝালকাঠিতে ইমামের টাকা চুরির অভিযোগে স্কুলছাত্রকে নির্যাতন

ঝালকাঠি প্রতিনিধি২০:০৫, মে ১৯, ২০১৭

নির্যাতনের স্বীকার সাগরঝালকাঠির সদর উপজেলার অলিপুর গ্রামে টাকা চুরির অপবাদে সাগর (৯) নামে এক স্কুলছাত্রকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতিত শিশুটি ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার পা ভেঙে দেওয়া হয়েছে। এদিকে, এ ঘটনায়  নির্যাতিত শিশুর ভাই ইব্রাহিম ৯ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনায় হৃদয় কারিকর ও জামাল হাওলাদারকে আটক করে পুলিশ। শুক্রবার তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নির্যাতিত শিশু সাগর আলিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।

সাগরের মা রাশিদা বেগম সাংবাদিকদের জানান, স্থানীয় জামে মসজিদের ঈমাম মোস্তফা কামালের দু’হাজার টাকা চুরির অভিযোগ এনে তার ছেলের ওপর নির্যাতন চালানো হয়। রবিবার (১৪ মে) সন্ধ্যায় এলাকার  সোহরাব, দফাদার সত্তার,হৃদয়, জামাল, আনোয়ারসহ অন্তত ১৫ জন সাগরকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। এরপর রাত ১০টা পর্যন্ত সাগরকে মারধর করা হয়। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় ছেলেকে উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ও সিভিল সার্জন ডা. শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার বলেন, শিশুটির শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার ডান পায়ের আঘাত গুরুতর। 

ঝালকাঠি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. তাজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, নির্যাতিত শিশুটির ভাই শুক্রবার সোহরাবসহ ৯ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। তবে নির্যাতনের সময় ইমান ঘটনাস্থলে না থাকায় তাকে আসামি করা হয়নি। মামলা দায়েরের আগেই দু’জনকে আটক করা হয়।

আলীপুর জামে মসজিদের ইমাম মোস্তফা কামাল জানান, তার টাকা চুরি হলেও তিনি শিশু নির্যাতনের সঙ্গে জড়িত নন। গ্রামের কিছু অতি উৎসাহী লোক শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটিয়েছে।

/বিএল/ 

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ