২৪ ঘণ্টা পার হওয়ার আগেই ১৬ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার

Send
যশোর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:৪৮, নভেম্বর ১৫, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৪৯, নভেম্বর ১৫, ২০১৭

যশোরযশোরে ১৬ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে অপহরণ ও গুমের মামলা দায়ের করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই তা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বাদী হিরা খাতুন। আসামিদের সঙ্গে মিমাংসা হয়ে যাওয়ার কথা বলে হিরা খাতুন এই পদক্ষেপ নিয়েছেন বলে জানান তার আইনজীবী অজিত কুমার দাস।

বুধবার (১৫ নভেম্বর) সকালে হিরা খাতুন তার আইনজীবী অজিত কুমার দাসের মাধ্যমে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর আমলী আদালতের বিচারক শাহিনুর রহমান বরাবর মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করেন।

এর আগে ছেলেকে অপহরণ ও দাবি করা ঘুষের টাকা না পেয়ে তাকে হত্যা ও গুমের অভিযোগে যশোর কোতোয়ালি থানার ১৬ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে যশোরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালতে মামলাটি দায়ের করেছিলেন শহরের শংকরপুর এলাকার হিরা খাতুন। আদালত হিরা খাতুনের অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) নির্দেশও দিয়েছিলেন। তবে ২৪ ঘণ্টা পা্র হওয়ার আগেই বাদী নিজেই মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করলেন।

আইনজীবী অজিত কুমার দাস বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বাদী নিজে এসে মামলাটি প্রত্যাহার করার কথা বলেছেন। বাদী আবেদনে লিখেছেন, আসামিদের সঙ্গে মীমাংসা হওয়ায় এবং আসামিরা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয় বুঝতে পেরে তিনি এ প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পরে বিচারক আবেদনটি  গ্রহণ করেন।’

তবে যশোরের আইনজীবী সমিতির সিনিয়র আইনজীবীরা বলছেন, বাদীকে প্রভাবিত করে মামলা প্রত্যাহার করানো হয়েছে। এছাড়া যে আদালত মামলা গ্রহণ করেছেন সেই আদালতই তদন্তে থাকা মামলা আইনগতভাবে প্রত্যাহার করতে পারেন না।

মানবাধিকার উন্নয়ন উদ্যোগ ফাউন্ডেশনের পরিচালক (তদন্ত) আবুল কাশেম বলেন, ‘ছেলেকে না পেয়ে তার মা আদালতে নালিশি পিটিশন করেছেন, আদালত তা তদন্তের নির্দেশও দিয়েছেন। কিন্তু ২৪ ঘণ্টা পার না হতেই তা প্রত্যাহার করার পেছনে নিশ্চয়ই কোনও চাপ আছে। ‌বিচারক এই পিটিশন মামলার তদন্তের নির্দেশ দিয়ে আবার তা প্রত্যাহার করছেন যা আইনসিদ্ধ নয়।’

যশোর আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি সিনিয়র আইনজীবী মাহবুব আলম বাচ্চু বলেন, ‘প্রভাবশালী ব্যক্তি বা ক্ষমতাবানদের বিরুদ্ধে মামলা করার পর প্রত্যাহারের ঘটনা ঘটলে বিষয়টা মানুষ স্বাভাবিকভাবে দেখে না। এক্ষেত্রেও তাই হয়েছে। মামলার নিজস্ব গতি বাধাগ্রস্ত হয়েছে বলেই মানুষ মনে করছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ মামলার আসামিরা ক্ষমতাবান। আড়ালে এমন একটা কিছু কাজ করেছে যাতে মামলা প্রত্যাহারে দেরি হয়নি।’

আরও পড়ুন- অপহরণ ও গুমের অভিযোগে ১৬ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

/এফএস/

লাইভ

টপ