স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার বিরুদ্ধে প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

Send
বগুড়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:৫১, নভেম্বর ১৫, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫১, নভেম্বর ১৫, ২০১৭

বগুড়ার ধুনটের চিকাশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও বগুড়া শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল কাদির শিপনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ না করেই ১০ লাখেরও বেশি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এছাড়াও তিনি এলজিএসপি প্রকল্পের সাড়ে ১৯ লাখ টাকা আত্মসাতের চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ করেছেন ইউনিয়ন পরিষদের ৮ সদস্য।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল কাদির শিপনতবে চেয়ারম্যান তার বিরুদ্ধে সদস্যদের আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমি স্থানীয় নোংরা রাজনীতির শিকার। বিভিন্ন প্রকল্পের বরাদ্দ ভাগ-বাটোয়ারা করে খাওয়ার সুযোগ না পেয়ে আমার বিরুদ্ধে মেম্বাররা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ করেছে।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা জানান, গত সপ্তাহে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার পর প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে তদন্ত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ওই রিপোর্টে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চিকাশী ইউনিয়নের সদস্য রোকনুজ্জামান বিপ্লব, রফিকুল ইসলাম, লিটন মণ্ডল, হারুনর রশিদ রেজা, আবদুল খালেক, মোখলেছুর রহমান, সংরক্ষিত আসনের সদস্য রাশেদা খাতুন ও শরিফুর আকতার এই অভিযোগ করেন।

অভিযোগ তারা জানান, গত ৪/৫ মাস চেয়ারম্যানের দুর্নীতির বিরোধিতা করে লাভ হয়নি। তাই তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। তারা জানান, ২০১৬ সালে চিকাশী বড়চাপড়া রাস্তার দু’পাশে বন বিভাগের রোপণ করা গাছ বিক্রির লভ্যাংশের মোট ৩ লাখ ৯৬ হাজার টাকা সদস্যদের না জানিয়ে ভুয়া বিল ভাউচারের মাধ্যমে আত্মসাৎ করেছেন চেয়ারম্যান। একইভাবে তিনি কোনও কাজ না করে ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের কর্মসৃজন প্রকল্পের নন ওয়েজ ব্যয় খাতের ২ লাখ ৩২ হাজার ও উপজেলা পরিষদ থেকে প্রাপ্ত ১ শতাংশ রাজস্ব আয়ের ১ লাখ ২০ হাজারসহ মোট ৭ লাখ ৪৮ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

এছাড়া চেয়ারম্যান শিপন দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে জন্ম নিবন্ধন ফি, ট্রেড লাইসেন্স ফিসহ পরিষদের বিভিন্ন তহবিলের ২-৩ লাখ টাকাও আত্মসাৎ করেছেন। এছাড়াও ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে এলজিএসপি প্রকল্পের বরাদ্দ দেওয়া ১৯ লাখ ৫ হাজার ২৮২ টাকা সদস্যদের না জানিয়ে ভুয়া প্রকল্পের মাধ্যমে আত্মসাতের চেষ্টা করছেন বলেও অভিযোগ করা হয়।

ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা জানান, চিকাশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৮ সদস্যের লিখিত অভিযোগ গত সপ্তাহে পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে দ্রুত রিপোর্ট দিতে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা নূরে আলম সিদ্দিকীকে বলা হয়েছে। অভিযোগের সত্যতা পেলে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চিকাশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বগুড়া শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল কাদির শিপন জানান, তিনি স্থানীয় আওয়ামী লীগের কতিপয় দায়িত্বশীল নেতা ও ৮ জন ইউপি সদস্যের নোংরা রাজনীতির শিকার। তিনি কোনও দুর্নীতিতে জড়িত নন। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন দফতরে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ করা হয়েছে।

/এমও/

লাইভ

টপ