স্বস্তিতে বাড়ি ফিরছে চট্টগ্রাম নগরবাসী

Send
হুমায়ুন মাসুদ, চট্টগ্রাম
প্রকাশিত : ১৮:০৬, জুন ১৪, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৪৪, জুন ১৪, ২০১৮

যানজটমুক্ত মহাসড়কসপ্তাহ খানেক আগেও ঈদে বাড়ি ফেরা নিয়ে শঙ্কায় ছিলেন চট্টগ্রাম নগরীর বাসিন্দারা। দীর্ঘ যানজট আর ভোগান্তি ঠেলে কীভাবে বাড়ি ফিরবেন, এ নিয়েই তারা দুশ্চিন্তায় ছিলেন। কিন্তু তাদের সেই দুশ্চিন্তা এখন আনন্দে রূপ নিয়েছে। কারণ, রাস্তাঘাটে যানজট নেই। তাই স্বস্তিতেই এবার বাড়ি ফেরা যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম থেকে বিভিন্ন জেলায় যাওয়া একাধিক যাত্রীর সঙ্গে কথা বলে এসব কথা জানা গেছে। তারা জানিয়েছেন, সড়কে সৃষ্ট খানাখন্দকের ভোগান্তি ছাড়া তেমন কোনও ঝামেলায় পড়তে হয়নি। যানজট ছাড়াই তারা নিজ নিজ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছেছেন।

সকালে চট্টগ্রাম থেকে ফেনীতে যান ৩৭তম বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত রুবেল। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘সকাল ৬টার দিকে আমি নগরীর অলংকার মোড়স্থ স্টারলাইন বাস কাউন্টারে যাই। অন্যান্য বছর কাউন্টারে গেলে টিকিটের জন্য কমপক্ষে দুই-আড়াইশ’ জনের লাইনের পেছনে দাঁড়াতে হতো। কিন্তু আজ গিয়ে দেখি ভিন্ন চিত্র। মাত্র ৩০-৩৫ জনের লাইন। রাস্তায় যানজট ছিল না; পুরো রাস্তা ছিল ফাঁকা। মাত্র এক ঘণ্টা ১০ মিনিটে আমি চট্টগ্রাম থেকে ফেনী চলে এসেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি গত কয়েক বছর ধরে চট্টগ্রামে থাকি। দীর্ঘ এ সময়ে কোনও ঈদে আজকের মতো স্বস্তিতে বাড়ি ফিরতে পারিনি। বৃষ্টির কারণে ধুলোবালিহীন সড়কে যানজট ছাড়াই এবারই স্বস্তিতে বাড়ি ফিরেছি।’

একই কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি বাইজিদ ইমন। বৃহস্পতিবার সকালে তিনি নগরীর বহদ্দারহাট বাস টার্মিনাল থেকে বাসে চড়ে কক্সবাজার গিয়েছেন।

বাইজিদ ইমন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বৃহস্পতিবার সকালে আমি চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার এসেছি। অন্যান্য বছর ঈদের সময় বাসের টিকেটের জন্য যাত্রীদের যে হুড়োহুড়ি দেখতাম, এবার সেটি চোখে পড়েনি। সড়কে যানজটও ছিল না। মাত্র সাড়ে ৪ ঘণ্টায় আমরা কক্সবাজার এসে পৌঁছেছি। সড়কের কিছু কিছু জায়গায় খানাখন্দকের ভোগান্তি ছাড়া এই রুটের যাত্রীদের এবার তেমন কোনও ভোগান্তিতে পড়তে হয়নি। বাস মালিকরাও এবার মাত্রাতিরিক্ত ভাড়া আদায় করেনি।’

বাসের মতো রেলযাত্রীরাও এবার স্বস্তিতে বাড়ি ফিরছেন। অন্যান্য বছর ঈদের সময় ট্রেনের ছাদে করে ঘরমুখো মানুষকে বাড়ি ফিরতে দেখা গেলেও এবার এমন দৃশ্য দেখা যায়নি। ভেতরে দাঁড়িয়ে যাওয়া যাত্রীর সংখ্যাও এবার গতবারের তুলনায় কম দেখা গেছে।

দুপুরের ট্রেনে ঢাকায় যাচ্ছেন চা বোর্ডের জনসংযোগ কর্মকর্তা রাজিবুল হাসান। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘গতবার ঈদে বাড়ি যাওয়ার সময় স্টেশনে মানুষের যে উপচে পড়া ভিড় ছিল, এবার সেটি নেই। ট্রেনের ছাদে করে যাওয়া দূরের কথা, এবার দাঁড়িয়ে যাওয়া যাত্রীর সংখ্যাও অনেক কম। এবার অনেক স্বস্তিতে বাড়ি ফিরছি।’

/এমএ/চেক-এমওএফ/

লাইভ

টপ