বরিশালে ‘জনগণের মুখোমুখি’ ছয় মেয়র প্রার্থী

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২০:৫৯, জুলাই ১৩, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:১৫, জুলাই ১৩, ২০১৮

জনগণের মুখোমুখি মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বীরাবরিশালে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) আয়োজিত অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বাদে অপর ছয় মেয়র প্রার্থী শুক্রবার জনগণের মুখোমুখি হয়েছেন। সুজন-এর বরিশাল জেলা ও মহানগর কমিটির উদ্যোগে বেলা ১১টায় নগরীর অশ্বিনী কুমার হলে এ উপলক্ষে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। যোগ্য ও সৎ প্রার্থী নির্বাচনে ভোটারদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীরা অনুষ্ঠানে ‘জনগণের মুখোমুখি’ হন। এ সময় অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

সুজন-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ২০-দলীয় জোটের নেতৃত্বাধীন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মজিবর রহমান সরওয়ার, জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী ইকবাল হোসেন (তাপস), স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী, জাতীয় পার্টি) মেয়র প্রার্থী বশির আহমেদ ঝুনু, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ওবাইদুর রহমান মাহবুব, বাসদ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. মনীষা চক্রবর্তী এবং বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) মনোনীত মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ।

সুজন-এর বরিশাল মহানগর কমিটির সভাপতি প্রফেসর শাহ সাজেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা কমিটির সভাপতি আক্কাস হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম, জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক রনজিৎ দত্ত প্রমুখ। অনুষ্ঠানের আয়োজকরা জানান, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪-দলীয় জোটের মনোনীত মেয়র প্রার্থী সেরনিয়াবাদ সাদিক আবদুল্লাহ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন, তবে উপস্থিত হননি। এ ব্যাপারে তার নির্বাচনি সমন্বয়ক, মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল জানান, পূর্ব-নির্ধারিত কর্মসূচি থাকায় সাদিক আবদুল্লাহ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারেননি। অনুষ্ঠানে সুজন-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক ড. বদিউল আলম বলেন, ‘শুধুমাত্র প্রার্থীরাই প্রতিশ্রুতি দেবেন তা নয়, জনগণকেও প্রতিশ্রুতি দিতে হবে- তারা কোনও অসৎ ও অযোগ্য প্রার্থীকে নির্বাচনে বিজয়ী করবেন না।’

সৎ ও যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনে অঙ্গীকার করছেন ভোটার-প্রার্থীরামেয়র প্রার্থী মজিবর রহমান সরওয়ার বলেন, ‘যে ভোটে অংশগ্রহণ করেছি, তা অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে কিনা তা নিয়ে মানুষের মাঝে সংশয় রয়েছে। তবু গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনের স্বার্থে আমরা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। কারণ আমরা চাই গণতন্ত্রের মুক্তি হোক।’ তিনি আরও বলেন, এবার মেয়র নির্বাচিত হলে নগর উন্নয়নে পরিকল্পনা করে জনগণের সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করবো।

অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানিয়ে মেয়র প্রার্থী ইকবাল হোসেন (তাপস) বলেন, ‘নির্বাচিত হলে নগরভবনে নগরপিতা হিসেবে নয়, নগরের সেবক হিসেবে কাজ করবো।’

স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী, জাপা) মেয়র প্রার্থী বশির আহমেদ ঝুনু বলেন, ভোটাররা ভোট দিয়ে নির্বাচিত করলে বরিশালের উন্নয়নে নিজেকে নিয়োজিত রাখবো।’

মেয়র প্রার্থী ডা. মনিষা চক্রবর্তী বলেন, নির্বাচিত হলে ’নগর কাউন্সিল’ গঠনের মাধ্যমে জনগণের মতামত নিয়ে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা হবে। আমি এই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রথম নারী প্রার্থী। বিগত ১৫ বছর কোনও মেয়রই নারীবান্ধব কর্মসূচি হাতে নেয়নি। আমি মেয়র হলে কর্মজীবী নারী হোস্টেল, ডে কেয়ার সেন্টারসহ নারীবান্ধব কর্মকাণ্ড পরিচালনা করবো। পাশাপাশি সমাজকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে পাড়ায় পাড়ায় পাঠশালা তৈরি, রচনা প্রতিযোগিতা, গণিত উৎসব ও সংস্কৃতি চর্চার ব্যবস্থা করবো।

মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বলেন, বরিশাল সিটি করপোরেশনকে দৃষ্টিনন্দন একটি নগরী হিসেবে গড়ে তোলা হবে। জলাবদ্ধতা নিরসন, সড়ক উন্নয়নসহ নাগরিক সমস্যাগুলোর সমাধান করা হবে। নগরের বস্তি এলাকার মানুষদের পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেয়া হবে।

মেয়র প্রার্থী ওবাইদুর রহমান মাহবুব বলেন, সিটি করপোরেশনকে দুর্নীতিমুক্ত করা হবে। সৎ লোককে ভোট দেয়ার জন্য তিনি ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানান।

/ওআর/

লাইভ

টপ