‘তফসিল ঘোষণার মাধ্যমে সরকার পাতানো নির্বাচনের চক্রান্তে মেতেছে’

Send
খুলনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:২১, নভেম্বর ০৯, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৪০, নভেম্বর ০৯, ২০১৮

বক্তব্য রাখছেন সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (ছবি– প্রতিনিধি)

তফসিল ঘোষণার মাধ্যমে সরকার পাতানো নির্বাচনের চক্রান্তে মেতেছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম। শুক্রবার (৯ নভেম্বর) বিকাল ৩টায় খুলনা মহানগরীর নিউ মার্কেট সংলগ্ন বায়তুন নূর মসজিদ চত্বরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগর ও জেলা শাখার উদ্যোগে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। জনসভায় চরমোনাই পীর খুলনার ৬টি আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন।

সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেন, ‘তফসিল ঘোষণার মাধ্যমে সরকার পাতানো নির্বাচনের চক্রান্তে মেতে উঠেছে। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ গত ৫ অক্টোবর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহাসমাবেশের মাধ্যমে ১০ দফা দাবি পেশ করেছে। গত ১৬ অক্টোবর প্রেসিডেন্টের নিকট ১০ দফা বাস্তবায়নে স্মারকলিপি দিয়েছে। ওই ১০ দফা মেনে নিলে রাজনৈতিক সংকট নিরসনে আর সংলাপের প্রয়োজন হতো না।’

তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচন নিয়ে জনমনে যে ভয় ও শঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে, সংলাপের মাধ্যমে তার অবসান ঘটিয়ে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি এবং নির্বাচনের দিন সেনাবাহিনী মোতায়েন করার সিদ্ধান্তে আসতে হবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য ইভিএম পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

চরমোনাই বলেন, ‘অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেশের সর্বস্তরের মানুষের গণ-দাবিতে পরিণত হয়েছে। দেশের অধিকাংশ রাজনৈতিক দলের যোক্তিক দাবিকে উপেক্ষা করে জাতীয় নির্বাচনের জন্য কোনও রকম সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি না করে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের তফসিল ঘোষণা দেশবাসীর জন্য দুর্ভাগ্যের বিষয়। দেশবাসী চায়, সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে একটি অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন। কিন্তু নির্বাচন কমিশন রাজনৈতিক দলগুলোকে আস্থায় না নিয়ে তফসিল ঘোষণা করায় জনগণ চরম হতাশ হয়েছে। আমরা আশা করবো, ক্ষমতাসীন সরকার এবং নির্বাচন কমিশন সব রাজনৈতিক দলের জন্য গ্রহণযোগ্য এবং নিরপেক্ষ পরিবেশ তৈরি করবে এবং কাঙ্খিত পরিবেশ তৈরির জন্য নির্বাচন পেছাবে।’

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা মহানগর সভাপতি ও খুলনা-৩ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী অধ্যক্ষ মাওলানা মুজ্জাম্মিল হকের সভাপতিত্বে ও মহানগর সহ-সভাপতি শেখ মো. নাসির উদ্দীন, মহানগর জয়েন্ট সেক্রেটারি মাওলানা ইমরান হুসাইন ও জেলা জয়েন্ট সেক্রেটারি ইঞ্জিনিয়ার এজাজ মানসুরের পরিচালনায় জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা আব্দুল আউয়াল, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব ও খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুস আহমাদ। সভাপতি তার বক্তব্যে জনসভা ডাকবাংলা সোনালী ব্যাংক চত্বরে করতে না দেওয়ার তীব্র নিন্দা জানান। জনসভায় আরও বক্তব্য রাখেন– ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ খুলনা জেলা সভাপতি মাওলানা আব্দুল্লাহ ইমরান, মহানগর সহ-সভাপতি মাওলানা মুজাফ্ফার হোসাইন, জেলা সহ-সভাপতি ও খুলনা-১ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী মাওলানা আবু সাঈদ, মাওলানা রেজাউল করীম, মহানগর সেক্রেটারি মুফতী আমানুল্লাহ, জেলা সেক্রেটারি শেখ হাসান ওবায়দুল করীম, সৌদি আরব শাখার সেক্রেটারি মাওলানা হাফেজ আসাদুল্লাহ আল গালিবসহ অনেকে।

 

/এমএ/

লাইভ

টপ