মহিউদ্দিন সোহেল হত্যা মামলায় গ্রেফতার আরও ৪

Send
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম
প্রকাশিত : ২৩:২৪, জানুয়ারি ১০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৭, জানুয়ারি ১০, ২০১৯

চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের পাহাড়তলীতে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মহিউদ্দিন সোহেল হত্যা মামলায় আরও চার আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

ডবলমুরিং থানার ওসি একেএম মহিউদ্দিন সেলিম এ তথ্য জানিয়েছেন। এ নিয়ে এই মামলায় ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

গ্রেফতার চার জন হলেন– সাহাবুদ্দিন (৩৫), আজাদ (২৯), মামুন (২৩) ও মোবারক হোসেন (২২)।

এর আগে গতকাল (৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় মামলার অন্যতম আসামি ওসমান খানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ওসি একেএম মহিউদ্দিন সেলিম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সোহেল হত্যা মামলায় আরও চার জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার চার জনের মধ্যে সাহাবুদ্দিন নামে একজন ছাড়া অন্যরা ওই হত্যা মামলার এজহারভুক্ত আসামি।’

এর আগে গত সোমবার (৭ জানুয়ারি) সকালে নগরীর ডবলমুরিং থানাধীন পাহাড়তলী বাজারের পাশে রেললাইন থেকে মহিউদ্দিন সোহেলের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার পর পুলিশ জানিয়েছিল, চাঁদাবাজির অভিযোগে পাহাড়তলী বাজারের ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা মহিউদ্দিন সোহেলকে গণপিটুনি দিলে তার মৃত্যু হয়।

তবে তার পরিবারের দাবি, গণপিটুনিতে নয়, সোহেলকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৮ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে সোহেলের ছোট ভাই শিশির এ দাবি করেন। একই অভিযোগে মঙ্গলবার রাতে সোহেলের ভাই শিশির থানায় এসে মামলা দায়ের করেন। মামলায় ২৭ জনকে নাম উল্লেখ করে আসামি করার পাশাপাশি আরও দেড়শ’ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে শিশির বলেন, ‘মহিউদ্দিন সোহেল চাঁদাবাজ কিংবা সন্ত্রাসী ছিলেন না। তার পারিবারিক ঐতিহ্য আছে। তার সাংগঠনিক ভিত্তি ছিল। তিনি রেলওয়ের একজন প্রথম শ্রেণির ঠিকাদার ছিলেন। পাহাড়তলী বাজার ও আশপাশের এলাকাকে মাদকমুক্ত করার ঘোষণা দেওয়ায় আমার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।’

 

/এমএ/

লাইভ

টপ