শ্রমিক নেতাকে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠানোর অভিযোগ ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে

Send
সাভার প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২০:১২, জানুয়ারি ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩৪, জানুয়ারি ১২, ২০১৯

হাসপাতালে শ্রমিক নেতা মুরাদ সরকার (ছবি– প্রতিনিধি)

আশুলিয়ায় এসবি নিটিং লিমিটেড নামের একটি কারখানার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মুরাদ সরকারকে (২৪) রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে ধামসোনা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য ও স্থানীয় আশুরিয়া থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মঈনুল ইসলাম ভুইয়ার বিরুদ্ধে। গুরুতর আহত অবস্থায় মুরাদকে উদ্ধার করে বাইপাইল এলাকার স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করেছেন তার পরিবার সদস্যরা।  শ্রমিক আন্দোলনকে কেন্দ্র করে তাকে রড দিয়ে পেটানো হয় বলে অভিযোগ করেন আহত শ্রমিক।

আহত মুরাদ সরকার বলেন, তিনি বাপাইল এলাকার এসবি নিটিং লিমিটেড কারখানার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি। ওই কারখানার ৪র্থ তলায় অপারেটর হিসেবে কাজ করেন। গত বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) সকালে কারখানার ভেতরে শ্রমিকরা মজুরি বৈষম্যর অভিযোগ তুলে কাজ বন্ধ করে কর্মবিরতি পালন শুরু করে। এসময় মালিক পক্ষ ওই শ্রমিক নেতাকে শ্রমিকদের কাজে ফেরানোর জন্য হ্যান্ড মাইকে ঘোষণা দেওয়ার জন্য বলেন। তবে তিনি মাইকে ঘোষণা না দিয়ে মালিকপক্ষের লোকজনকে ঘোষণা দেওয়ার জন্য বলেন। এতে মালিকপক্ষ ক্ষুব্ধ হয়ে তাদের কারখানায় ঝুটের ব্যবসা করা  স্থানীয় ধামসোনা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড সদস্য ও আশুলিয়া থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক যুবলীগ নেতা মঈনুল ইসলাম ভুইয়াকে খবর দেয়।

মুরাদ আরও জানান, এরপরে দুপুরের দিকে কারখানা থেকে বের হয়ে বগাবাড়ি এলাকায় নিজের ভাড়া বাড়ির কাছে পৌঁছান তিনি। ঠিক সেসময় সেখানে  আগে থেকে অবস্থান করা আশুলিয়া থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও ধামসোনা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড সদস্য মঈনুল ইসলাম ভুইয়ার লোকজন তাকে থামায়। এবং তাকে লোহার রড দিয়ে পেটাতে পেটাতে কারখানার সামনে নিয়ে যায়। সেখান থেকে ইউপি সদস্য মঈনুল ইসলাম ভুইয়ার নির্দেশে আবারও তাকে পেটাতে পেটাতে বগাবাড়ীর ভুইয়া পাড়া এলাকায় অবস্থিত ইউপি সদস্য মঈনুলের কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। সেখানেও তাকে (মুরাদ) মারধর করে ওই ইউপি সদস্য ও তার লোকজন। সেখানে মারধরের বিষয়ে কাউকে না জানানোর জন্য মুরাদকে হুমকি দেয় ইউপি সদস্য যুবলীগ নেতা মঈনুল ।

খবর পেয়ে মুরাদের স্ত্রী ও পরিবার সদস্যরা এসে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে পাশের এশিয়ান হসপিটাল  অ্যান্ড ডায়গানস্টিক সেন্টারে ভর্তি করে।

আহত শ্রমিক নেতার স্ত্রী অভিযোগ করেন, যুবলীগ নেতা  মঈনুল ওই কারখানায় ঝুটের ব্যবসা করেন। এ কারণে তার স্বামী শ্রমিক আন্দোলন করাচ্ছে এমন মিথ্যে অভিযোগ তুলে মালিক পক্ষের ইশারায় ইউপি সদস্য ও যুবলীগ নেতা মঈনুল ও তার লোকজন মুরাদকে আটক করে রড দিয়ে পেটায়। তিনি এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।

তবে অভিযুক্ত আশুলিয়া থানা যুবলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক ও ইউপি সদস্য মঈনুল ইসলাম ভুইয়া মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, তাকে ডেকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) জাবেদ মাসুদ বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই। তবে এ ঘটনায় কেউ যদি অভিযোগ করে তাহলে বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

/এমএ/টিএন/

লাইভ

টপ