ক্লাস-পরীক্ষা চালুর দাবিতে হাবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

Send
দিনাজপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:০৮, জানুয়ারি ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৪৪, জানুয়ারি ১৪, ২০১৯

ক্লাশ-পরীক্ষা চালুর দাবিতে দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে। ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম শেষ হলেও নতুন কর্মসূচি দেয়নি শিক্ষার্থীরা। প্রশাসন থেকে শিক্ষার্থীদের আশ্বস্ত করা হয়েছে মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) একাডেমিক কাউন্সিলে ক্লাশ-পরীক্ষা চালুর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
এদিকে সহকারী অধ্যাপকদের লাঞ্ছনাকারীদের বিচার, বেতন-বৈষম্যসহ কয়েকটি দাবিতে ক্লাশ-পরীক্ষা বর্জন করে প্রতীকী অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দেড় শতাধিক শিক্ষক। বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ক্লাশ-পরীক্ষা বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন ওই শিক্ষকরা। তাদের দাবির ব্যাপারে প্রশাসন কোনও উদ্যোগ গ্রহণ করছে না বলে অভিযোগ করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা।
এদিকে সোমবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেছে। ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম শেষ হওয়ায় বিকেল ৩ টায় তাদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করার কথা ছিল। কিন্তু এর আগেই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের জানানো হয়েছে, একাডেমিক কাউন্সিলে ক্লাশ-পরীক্ষা চালুর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে। এরপর দুপুর দেড়টার দিকে আন্দোলরত শিক্ষার্থী ফিরে যায়।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ১৪ নভেম্বর থেকে বেতন বৈষম্য নিরসন, সহকারী অধ্যাপকদের লাঞ্ছিত ও নারী শিক্ষিকাদের শ্লীলতাহানির বিচার, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর, রেজিস্ট্রার ও ছাত্র উপদেষ্টার বহিষ্কার এবং দুই সহকারী অধ্যাপকের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে ক্লাশ-পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলন করছেন ৬১ জন সহকারী অধ্যাপক। তাদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামও। এতে প্রায় দুই মাস ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের আড়াই শতাধিক শিক্ষকের মধ্যে দেড় শতাধিক শিক্ষক আন্দোলনে থাকায় অধিকাংশ ক্লাশ-পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।
এদিকে ক্লাশ-পরীক্ষা চালুর দাবিতে গত বুধবার শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নামলে বৃহস্পতিবার প্রশাসন প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরাম ও সহকারী অধ্যাপকদের সঙ্গে আলোচনায় বসে। কিন্তু দিনভর আলোচনা করেও কোনও সমাধান করতে পারেনি প্রশাসন।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. শফিউল আলম বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য উপাচার্য ঢাকায় গেছেন। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তাছাড়া মঙ্গলবার একাডেমিক কাউন্সিলের বৈঠক হবে। সেখানে ক্লাশ-পরীক্ষা চালুর জন্য শিক্ষকদের বলা হবে। আশা করি এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংকট সমাধান হবে।’

/ওআর/এমওএফ/

লাইভ

টপ