ইচ্ছে মতো আসা-যাওয়ার অভিযোগ, ঝিনাইদহে ১৪ ডাক্তারকে শোকজ

Send
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৯:২৪, মার্চ ১৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৩৮, মার্চ ১৫, ২০১৯

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল (ছবি: ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত)ইচ্ছে মতো সময়ে কর্মস্থলে আসা-যাওয়ার অভিযোগে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের ১৪ জন চিকিৎসককে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ছুটিতে থাকায় তার পক্ষে সিভিল সার্জন ডা. রাশেদা সুলতানা এ সংক্রান্ত চিঠিতে বৃহস্পতিবার দুপুরে সাক্ষর করেন। শোকজ নোটিশ পাওয়ার তিন দিনের মধ্যে চিকিৎসকদের জবাব দিতে বলা হয়েছে। খবরটি নিশ্চিত করেন ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের প্রধান সহকারী মো. মশিউর রহমান।

সুত্র জানায় যথা সময়ে কর্মস্থলে উপস্থিত না হওয়া ও নির্ধারিত সময়ের আগেই হাসপাতাল ত্যাগ করার কারণে এই চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে শোকজ নোটিশ জারি করা হয়। শোকজ প্রাপ্তরা হলেন সিনিয়র কনসাল্টেন আ স ম আব্দুর রহমান (অ্যানেসথেশিয়া), নাক কান গলা বিশেষজ্ঞ রাশেদ আলী মোড়ল, হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ গোলাম রব্বানী, হাড় জোড় বিশেষজ্ঞ গাজী আহসান উল মুনীর, সার্জারি বিশেষজ্ঞ জাহিদুর রহমান ও তারিখ আক্তার খান, গাইনি বিশেষজ্ঞ চলন্তিকা রানী, শিশু বিশেষজ্ঞ আনোলারুল ইসলাম, দন্ত বিশেষজ্ঞ ওমর খৈয়াম, হাড় জোড় বিশেষজ্ঞ ডা. শাহ আলম প্রিন্স, মেডিক্যাল অফিসার শাহিন ঢালী, ফাল্গুনী রানী, ইমামুল হক ও হুমায়ন শাহেদ। এরমধ্যে ডা. হুমায়ন শাহেদ বিনা অনুমতিতে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকার কারণে শোকজ চিঠি পেয়েছেন।

রোগীদের অভিযোগ, সকাল প্রতিদিন ৮টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত অফিস সময় হলেও ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের বেশির ভাগ চিকিৎসক যথা সময়ে কর্মস্থলে উপস্থিত হন না। অনেক সময় দুপুরের আজান হলেই চিকিৎসকরা প্রাইভেট প্র্যাকটিস করার জন্য ক্লিনিকে বা বাড়ির পথ ধরেন। এছাড়া হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের রাতের বেলা রাউন্ড দেওয়ার বিধান থাকলেও মেডিসিন, সার্জারি ও হৃদরোগের চিকিৎসকরা রাউন্ড দেন না।

তবে ডাক্তাররা অন কলে ডিউটি করেন বলে দাবি করেন হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ড. অপুর্ব কুমার। তিনি বলেন, ‘চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে ঢালাও অভিযোগ ঠিক নয়। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসদের মধ্যে কয়েকটি বিভাগ বাদে সবাই রাতে রাউন্ড দেন। তবে মেডিসিন ও সার্জারি চিকিৎসক অন কলে আসেন।’

ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন ডা. রাশেদা সুলতানা শোকজের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ‘যথাসময়ে কর্মস্থলে উপস্থিত না হওয়া ও নির্ধারিত সময়ের আগেই হাসপাতাল ত্যাগ করার কারণে ১৪ জন চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে শোকজ নোটিশ জারি করা হয়। জবাব পেয়ে তাদের বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

/এফএস/

লাইভ

টপ