বাগেরহাটে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

Send
বাগেরহাট প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১২:১৮, এপ্রিল ১৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৭, এপ্রিল ১৫, ২০১৯

ধর্ষণ

বাগেরহাট সদর উপজেলার বারুইপাড়ায় নিজাম শেখ (৫০) নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় রবিবার (১৪ এপ্রিল) রাত ১১টায় শিশুটির ফুফা রফিকুল ইসলাম দিদার তিনজনকে আসামি করে বাগেরহাট মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। সোমবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ওই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

অভিযুক্ত নিজাম শেখ সদর উপজেলার বারুইপাড়া গ্রামের বাসিন্দা এবং ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর প্রতিবেশী।

ছাত্রীর ফুফা রফিকুল ইসলাম দিদার ও এলাকাবাসী জানান, এই মেয়েটির বাবা ১০ বছর আগে ঢাকায় একটি কারখানায় কাজ করা অবস্থায় নিরুদ্দেশ হন। এরপর মা তার দুই কন্যাশিশুকে দাদির কাছে রেখে ঢাকায় চলে যান। পরে দুই শিশুর মধ্যে বড়টিকে তার মা ঢাকায় নিয়ে যান।

জানা যায়, এলাকাবাসীর আর্থিক সহায়তায় এই মেয়েটি তার বৃদ্ধা দাদির আশ্রয়ে থেকে পার্শ্ববর্তী একটি বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেণিতে লেখাপড়া করছে।

ছাত্রীর ফুফা মামলার এজাহারে অভিযোগ করেন, শনিবার (১৩ এপ্রিল) বিকালে ওই ছাত্রী তার দাদির ঘরে ঘুমাচ্ছিল। এ সময় তার দাদি বাড়িতে ছিল না। এ সুযোগে প্রতিবেশী নিজাম শেখ (৫০) ঘরে ঢুকে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। ওই সময় মেয়েটির ফুফু ওই বাড়িতে গিয়ে দরজায় ধাক্কা দেন। নিজাম শেখ তখন দরজা খুলে পালিয়ে যায়।

রবিবার ওই ছাত্রীর ফুফা দিনমজুর রফিকুল ইসলাম দিদার ওই বাড়িতে গিয়ে ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত নিজাম শেখ, তার স্ত্রী ও ছেলে তাকে (দিদারকে) বেধড়ক মারপিট করে।

বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহতাব উদ্দিন মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় জানান, এই ধর্ষণের ঘটনায় বাগেরহাট মডেল থানায় মামলা হয়েছে। ওই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্তদের আটকের চেষ্টা করছে বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে বাগেরহাট সদর উপজেলার নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান রিজিয়া পারভিন বলেন, ‘এ ঘটনায় অপরাধীকে গ্রেফতার ও বিচারের আওতায় আনার জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি।’

/এপিএইচ/এমএমজে/

লাইভ

টপ