নুসরাত হত্য: সোনাগাজীর সেই মাদ্রাসার গভার্নিং কমিটি বাতিল

Send
ফেনী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০১:০৮, এপ্রিল ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:০৮, এপ্রিল ২০, ২০১৯

মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার গভার্নিং কমিটি বাতিল করে দেওয়া হয়েছে । একই সঙ্গে আহ্বায়ক কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছে মাদ্রাসাটির ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়।
ফেনীর জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘মাদ্রাসাটির ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ ইসলাবি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় তারা আমাকে সিদ্ধান্তের কথা এক চিঠিতে জানিয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, নুসরাত হত্যা এবং অধ্যক্ষের অনিয়ম-দুর্নীতি ও শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানির বিষয়ে জেনেও ব্যবস্থা না নেওয়ায় সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদ বাতিল করে পাঁচ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’
গত বছরের সেপ্টেম্বরে সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদের ১২ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে চারজন অভিভাবক সদস্য, তিনজন শিক্ষক প্রতিনিধি, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, একজন শিক্ষানুরাগী, একজন দাতা সদস্য, অধ্যক্ষকে সদস্যসচিব এবং অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে সভাপতি করা হয়।
ফেনীর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি পিকে এনামুল করিম বলেন, ‘ আমি প্রশিক্ষণে রয়েছি। ঠিক কী কারণে কমিটি বাতিল করা হয়েছে তা জানি না।’

প্রসঙ্গত, নিহত নুসরাত সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী ছিলেন। ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলার বিরুদ্ধে তিনি যৌন নিপীড়নের অভিযোগ করেন। নুসরাতের মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে ২৭ মার্চ সোনাগাজী থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মামলা তুলে নিতে বিভিন্নভাবে নুসরাতের পরিবারকে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। ৬ এপ্রিল সকাল ৯টার দিকে আলিম পর্যায়ের আরবি প্রথমপত্রের পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে যান নুসরাত। এ সময় তাকে কৌশলে পাশের বহুতল ভবনের ছাদে ডেকে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। সেখানে তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেওয়া হয়। গত ১০ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯টায় ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নুসরাত মারা যান। এই ঘটনায় নুসরাতের ভাইয়ের দায়ের করা মামলাটি তদন্ত করছে পিবিআই।

/এআর/

লাইভ

টপ