মাভাবিপ্রবিতে ছাত্রলীগ সভাপতিসহ ৩ নেতা স্থায়ী বহিষ্কার

Send
মাভাবিপ্রবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০১:০০, এপ্রিল ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৮:১৩, এপ্রিল ২৫, ২০১৯

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (মাভাবিপ্রবি)মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (মাভাবিপ্রবি) ছাত্রলীগের সভাপতিসহ তিন নেতাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়েছে। এছাড়া দুই নেত্রীকে এক সেমিস্টারের জন্য বহিষ্কার এবং এক নেতাকে সতর্ক করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক লাঞ্ছিত ও এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে মিথ্যা যৌন হয়রানির অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. মো. সিরাজুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) শাস্তিপ্রাপ্তদের নামে চিঠি পাঠিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এর আগে তদন্ত কমিটির সুপারিশে ২১ এপ্রিল ঢাকায় লিয়াঁজো অফিসে অনুষ্ঠিত রিজেন্ট বোর্ডের জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

স্থায়ী বহিষ্কৃতরা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সভাপতি সজীব তালুকদার, সহ-সভাপতি মো. ইমরান মিয়া ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. জাবির ইকবাল। এক সেমিস্টারের জন্য বহিষ্কৃত দুই ছাত্রী হলেন, সহ-সভাপতি আদ্রিতা পান্না ও ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক ঈশিতা বিশ্বাস। এছাড়া যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন আরাফাতকে ভবিষ্যতে বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে জড়িত না হওয়ার জন্য বলা হয়েছে। 

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ৩য় বর্ষ ২য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগের ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক ঈশিতা বিশ্বাস তিশা পূর্ববর্তী সেমিস্টারে পাস না করলেও গত বছরের ৭ অক্টোবর তাকে পরীক্ষা দেওয়ার জন্য সিটে (আসনে) বসিয়ে দেয় ছাত্রলীগের সভাপতি সজীব তালুকদার ও তার সহযোগিরা। তখন ওই বিভাগের শিক্ষকরা বাধা দিতে গেলে তারা লাঞ্ছনার শিকার হন।

এ ঘটনায় দোষীদের বহিস্কার না করায় পরের দিন ৮ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৪ শিক্ষক প্রশাসনিক ও একাডেমিক পদ থেকে পদত্যাগ করেন। পরে ওই ছাত্রী এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তোলেন। পরবর্তীতে তদন্তে শিক্ষকের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন রিজেন্ট বোর্ডের জরুরি সভার মাধ্যমে ৫ জনকে সাময়িক বহিস্কার করে এবং একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। রিজেন্ট বোর্ডের সদস্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য শরীফ এনামুল কবিরকে আহ্বায়ক, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য একেএম সাইদুল হক চৌধুরীকে সদস্য সচিব এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মো. সিরাজুল ইসলামকে সদস্য করা হয়।

 

/এসএসএ/

লাইভ

টপ