শিশু মিশুর চিঠি: পার্বতীপুরে তিন ইটভাটা গুঁড়িয়ে দিলো প্রশাসন

Send
দিনাজপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:৩৪, এপ্রিল ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:০২, এপ্রিল ২৫, ২০১৯

ইট ভাটাদিনাজপুরের পার্বতীপুরে তিন ইটভাটা গুঁড়িয়ে দিয়েছে পরিবেশ অধিদফতর। জেলা প্রশাসকের কাছে লেখা দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী মায়িশা মনাওয়রা মিশুর পোস্ট ফেসবুকে দেখে অনুমোদন ও ছাড়পত্রবিহীন ভাটাগুলো গুঁড়িয়ে দেয় পরিবেশ অধিদফতরের ইনফোর্সমেন্ট টিম। এ সময় ভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট উইং প্রকৌশলী কাজী তামজিদ আহমেদ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। তিনি যমুনা ব্রিক্সকে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা ও এসএইচ বিক্সকে ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। সেইসঙ্গে যমুনা ব্রিক্স, এসএইচ ব্রিক্স ও বন্ধ থাকা বিএম ব্রিক্স গুড়িয়ে দেওয়া হয়। বুধবার (২৪ এপ্রিল) এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে ছিলেন রংপুর পরিবেশ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক মিহির লাল সরদার, পরিদর্শক মির্জা আসাদুল কিবরিয়া, পার্বতীপুর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা সৈয়দ সাইফুল্লাহ, দিনাজপুর র‌্যাব-১৩ এর সিনিয়র এএসপি সিদ্দিকুর রহমানসহ পার্বতীপুর মডেল থানার এক দল পুলিশ।

কাজী তামজীদ আহমেদ বলেন, ‘হয়বৎপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী মায়িশা মনাওয়রা শিমুর ফেসবুকে অভিযোগের ভিত্তিতে যমুনা, বিএম ও এসএইচ ইটভাটায় অভিযান চালানো হয়। ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ (সংশোধনী) আইন ২০১৯ অনুসারে (ছাড়পত্র ও কোনও অনুমোদন না থাকায়) এসকেভেটর দিয়ে ইটভাটা ভেঙে দেওয়া ও ফায়ার সার্ভিসের পানি দিয়ে ভাটার আগুন নেভানো হয়। ইট তৈরিতে ব্যবহৃত মালপত্রও ধ্বংস করা হয়।’

কাজী তামজীদ আহমেদ জানান, পার্বতীপুরের প্রতিটি অবৈধ ভাটায় অভিযান চালানো হবে। এ পর্যন্ত তিনি সারাদেশের ১০ হাজার ইটভাটার মধ্যে ১১০টি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে ৫ কোটি টাকা জরিমানা করেছেন।

পরিবেশ অধিদফতর রংপুরের উপ-পরিচালক আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘অধিদফতরের মহাপরিচালকের নির্দেশে অভিযান চালানো হয়েছে।’

ফেসবুক স্ট্যাটাসজেলা প্রশাসকের কাছে লেখা চিঠির লেখক মিশুর অনুভূতি, ইটভাটা বন্ধ হওয়ায় আমিসহ বিদ্যালয়ের শিশুরা বুক ভরে শ্বাস নিতে পারবে। ভাটার কালো ধোঁয়া প্রবেশ করে আর আমাদের চোখ জ্বালা করবে না।

শিশুটির বাবা গবিন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মমিনুল হক বলেন, ‘বিদ্যালয়ের পাশে ভাটা হওয়ায় শিশুরা শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে ভুগছিল। কয়লার সঙ্গে সয়াবিনের বর্জ্য পোড়ানোর কারণে শিশুদের চোখ বেশি করে জ্বালা করছিল। ভাটা বন্ধ হওয়ায় শিশুদের বিজয় হয়েছে।’

উল্লেখ্য, ২৭ মার্চ দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী মিশু ফেসবুকে নিজ হাতের লেখা চিঠির ছবি পোস্ট করে। সেখানে লেখা ছিল, ‘মাননীয় ডিসি স্যার দিনাজপুর, ছালাম নিবেন। আমরা দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার হয়বতপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়ি। আমাদের স্কুলের পাশে বিপ্লব নামের একজন লোক ইটভাটা দিয়েছে। ভাটার কালো ধোঁয়ায় আমাদের শ্বাসকষ্ট হয়। পরিবেশের ক্ষতি হয়। চোখ জ্বালা করে। এখন আবার স্কুলের পাশে মুক্তা নামের এক লোক আরেকটি ইটভাটা দিতেছে। তাহলে আমাদের আরো ক্ষতি হবে। আমরা কিভাবে বাঁচবো? আপনি আমাদের বাঁচান।’

পোস্টটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে গেলে পোস্ট দেখে দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে রাতেই সাময়িকভাবে ভাটার কর্যক্রম বন্ধ করে দেন। এই ঘটনায় দিনাজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী মিশুর সঙ্গে কথা বলে ভাটা বন্ধ করার আশ্বাস দেন। একইসঙ্গে প্রশাসনকেও বিষয়টিতে নজর রাখার কথা বলেন। পরে আবার ভাটা চালুর দাবিতে ১০ এপ্রিল শ্রমিকদের দিয়ে মানববন্ধন করান ভাটা মালিক হাসান শাহরিয়ার সবুজ।

 

/এনআই/

লাইভ

টপ