২৪ বছর পর যৌন হয়রানির মামলার রায়, ৫ আসামির ১৩ বছরের জেল

Send
রংপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:৩২, মে ২১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৪০, মে ২১, ২০১৯

মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামিরাযৌন হয়রানির পর কলেজ ছাত্রী রুমানা অফরোজ তন্দ্রার আত্মহত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ২৪ বছর পর রায় দিয়েছেন আদালত। বিচারক পাঁচ আসামিকে ১৩ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন। আজ মঙ্গলবার (২১ মে) দুপুরে রংপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক জাবিদ হোসেন এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৬ সালের ১ জুলাই ঢাকার মীরপুরের আইডিয়াল কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী রুমানা আফরোজ তন্দ্রা রংপুর নগরীর রবার্টসনগঞ্জ মন্ডলপাড়া মহল্লায় তার বাবার বাড়ির সামনে সন্ধ্যার দিকে একটি দোকানে দিয়াশলাই কেনার জন্য গেলে দোকানের পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা আসামি মানিক তন্দ্রাকে জাপটে ধরে। এ সময় তন্দ্রা চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তাদের সামনেই আসামি মানিকসহ তার সঙ্গীরা তন্দ্রাকে ঘাড়ে তুলে অপহরণ করার চেষ্টা করে। তন্দ্রা দৌড় দিয়ে বাসায় এসে একটি কুড়াল নিয়ে আসামিদের প্রতিরোধ করার চেষ্টা করে। এ সময় আসামিরা তন্দ্রাকে মারধর করে পরনের কাপড় ছিঁড়ে ফেলে এবং তার ওড়না কেড়ে নেয়। এ ঘটনায় ক্ষোভে অভিমানে তন্দ্রা বাড়ির ছাদে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে তার মা মাসুদা চৌদুরী বাদী হয়ে আসামি মানিক, রতন, বাবলা, রানা ও মালেকা বেগমকে আসামি করে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করে। তদন্ত করে পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে। দীর্ঘ ২৪ বছর পর অবশেষে আজ দুপুরে পাঁচ আসামিকে দোষি সাব্যস্ত করে ১৩ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন বিচারক।

রায় ঘোষণার সময় বিচারক তার পর্যবেক্ষণে বলেন, একটি মেয়ে কত অসহায় হতে পারে শত শত মানুষের সামনে তাকে অপদস্ত করা হলো, অথচ কেউ তার সাহায্যে এগিয়ে আসেনি। এ মামলায় সাক্ষীরা আদালতে সাক্ষ্য দিয়ে সন্দেহাতীতভাবে অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে।

বিচারক বলেন, ‘এখন পত্রিকায় পাতা খুললেই দেখা যায় যৌন হয়রানি, খুনসহ নানান অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড। দিন দিন এ ধরনের অপরাধ প্রবণতা কমছে না বরং বাড়ছে। আসামিরা একটি অসহায় মেয়ের ওপর যে ধরনের বর্বরতা করেছে তাতে করে তাদের কঠোর থেকে কঠোরতর শাস্তি হওয়া উচিত।’

এদিকে সরকার পক্ষে মামলা পরিচালনাকারী নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতের বিশেষ পিপি জাহাঙ্গীর হোসেন তুহিন বলেন, ‘এই মামলার বিচার আসামিরা বিভিন্নভাবে বিলম্বিত করার চেষ্টা করেছে। তার পরেও ২৪ বছর পর আদালত সাজা দিয়েছেন। বাদী পক্ষ ন্যায়বিচার পেয়েছে।’

 

/এফএস/

লাইভ

টপ