ফেনী খাদ্য অফিসে ‘লেবার কস্টে’র নামে টাকা নেওয়ার অভিযোগ

Send
ফেনী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২৩:৪৭, মে ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:২৬, মে ২৩, ২০১৯

ফেনীতে ধান সংগ্রহফেনীতে খাদ্য অফিসে ধান বিক্রি করতে আসা কৃষকদের কাছ থেকে ‘লেবার কস্টে’র নামে মণপ্রতি ২০ টাকা করে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কৃষক জহির উদ্দিনের অভিযোগ, তার কাছ থেকে খাদ্য অফিসে লেবার কস্টের নামে মণপ্রতি ২০ টাকা করে নিয়েছে। তার আরও অভিযোগ, সকালে এসে বিকাল গড়িয়ে যাচ্ছে ধান বিক্রির খবর নেই। লম্বা লাইনের মধ্যে ধান আনলোড, ওজন মাপ ও বস্তায় মজুত পর্যন্ত অনেক সময় লাগছে।

ফেনী জেলা খাদ্য অফিসে ধান বিক্রি করতে আসা ফেনী সদরের ছোট ধলিয়ার ইউনুছ মিয়ার ছেলে কৃষক সাহাব উদ্দিনের সঙ্গেও এই প্রতিনিধির কথা হয়। তিনি জানান, কৃষকদের দীর্ঘ লাইনের কারণে সকাল ৯টায় এসে বিকাল ৩টায়ও ধান বিক্রি করতে পারেননি।

অভিযোগের বিষয়ে উপ-সহকারী খাদ্য পরিদর্শক তরিকুল ইসলাম জানান, টাকা নেওয়ার কথা ঠিক নয়। তবে, লেবাররা কেউ নিয়েছে কিনা, আমি জানি না। কেউ অভিযোগ করেননি।

উপ-সহকারী খাদ্য পরিদর্শক তরিকুল ইসলাম জানান, ফেনীতে সাত দিনে ৫৮ জন কৃষক থেকে ৫০ মেট্রিক টন বোরো ধান কিনেছে খাদ্য অধিদফতর। ১৬ মে থেকে ২২ মে পর্যন্ত এই ধান কেনা হয়। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ধান কেনা হচ্ছে।

জেলা কৃষি বিভাগের দেওয়া তথ্য মতে, এবার ফেনী জেলার ছয় উপজেলায় ধানের আবাদ হয়েছে ৩০ হাজার ৭৫ হেক্টর জমিতে। আর ধান থেকে চালের উৎপাদন হয়েছে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন। সরকারিভাবে এই জেলায় কৃষকের কাছ থেকে মাত্র ৮৭৩ মেট্রিক টন ধান ও ২ হাজার ৯শ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

সূত্র জানায়, এবার ফেনী সদরে ২৬৩, ছাগলনাইয়ায় ১৫৯, দাগনভূঞায় ১৯০, পরশুরামে ৯৪, ফুলগাজীতে ১৩৪ ও সোনাগাজীতে ৩৩ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহ করা হবে। এছাড়া ৩৬ টাকা কেজি দরে ফেনী জেলায় চাল সংগ্রহ করা হবে ২ হাজার ৯৪২ মেট্রিক টন।

 

 

/এনআই/

লাইভ

টপ