দুদকের মামলায় নাগেশ্বরী পৌর মেয়র জেল হাজতে

Send
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২৩:৩৯, মে ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:০১, মে ২৩, ২০১৯

নাগেশ্বরী পৌরসভার মেয়র আবদুর রহমান মিয়াসরকারি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী পৌরসভার মেয়র আবদুর রহমান মিয়াকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার (২২ মে) সকালে কুড়িগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজিরা দিতে গেলে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

কুড়িগ্রাম পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিংকন বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আদালত ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, নাগেশ্বরী পৌর মেয়র আবদুর রহমান মিয়া নাগেশ্বরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে আদায় করা রাজস্ব খাতের অর্থ সরকারি কোষাগারে যথাসময়ে জমা করেননি। তিনি পরবর্তী সময়ে দুদকের তদন্তকালে ওই টাকা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমা দিলেও দুদকের আইন অণুবিভাগের মতামত অনুযায়ী, আত্মসাৎকৃত অর্থ পরে ফেরত দিলেও অপরাধের দায় থেকে মুক্তি পাওয়া যায় না। প্রাথমিক তদন্তে এ অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে ১৪ মার্চ নাগেশ্বরী থানায় মামলা দায়ের করে দুদক। পরে উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেন মেয়র। বুধবার আদালতে হাজিরা দিতে গেলে ভারপ্রাপ্ত জেলা জজ আশিকুল খবির তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় রংপুরের উপ-পরিচালক শেখ মো. ফানাফিল্লাহ জানিয়েছেন, প্রাথমিক তদন্তে নাগেশ্বরী পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে ১৫ লক্ষাধিক টাকা আত্মসাতের অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। তাই তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুদক।

এ বিষয়ে নাগেশ্বরী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  (ওসি) রওশন কবির বলেন, ‘পৌর মেয়র আদালতে হাজিরা দিতে গেলে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানতে পেরেছি।’

মেয়র আবদুর রহমান মিয়ার আইনজীবী ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘দুদকের করা মামলায় মেয়র উচ্চ আদালতের জামিনে ছিলেন। জামিনের মেয়াদ শেষে বুধবার তিনি আদালতে হাজিরা দিতে আসলে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। আমরা আদালতের সার্টিফাইড কপি পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছি। এরপর আমরা মেয়রের জামিনের জন্য আবার উচ্চ আদালতে যাব।’

 

/এমএএ/

লাইভ

টপ