নিখোঁজের ১২ দিন পর সেপটিক ট্যাংকে বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রের লাশ

Send
গাজীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:৩০, মে ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩৮, মে ২৩, ২০১৯

আটক হাসিবুল ইসলাম (ছবি– প্রতিনিধি)

ঢাকা থেকে নিখোঁজের ১২ দিন পর গাজীপুর থেকে এক বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) গাজীপুরের মধ্য কামারজুরি বাজার এলাকার একটির বাসার সেপটিক ট্যাংক থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে হাসিবুল ইসলাম (২৪) নামের হোটেল ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে।

নিহত বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রের নাম ইসমাইল হোসেন জিসান (২৪)। তিনি গাজীপুর সিটি করপোরেশনের গাছা থানার কাথোরা এলাকার সাব্বির হোসেন শহীদের ছেলে। জিসান ‘ইউরোপিয়ান অব বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি’র সিভিল বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের গাছা থানার এসআই ফোরকান জানান, গত ১২ মে ঢাকার শেরে বাংলা থানা এলাকা থেকে মোটরসাইকেলে চড়ে গাজীপুরের কাথোরা এলাকার নিজ বাড়িতে আসার পথে নিখোঁজ হন জিসান। তার খোঁজ না পেয়ে পরদিন ১৩ মে গাছা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার বাবা সাব্বির হোসেন শহিদ। এর চারদিন পর ঢাকার শেরে বাংলা নগর থানায় আরেকটি জিডি করা হয়।

শেরে বাংলা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) তোফাজ্জল হোসেন জানান, জিডির সূত্র ধরে তদন্তকালে জিসান নিখোঁজের ঘটনায় গাজীপুরের মধ্য কামারজুরি বাজার এলাকার খাবার হোটেলের ব্যবসায়ী হাসিবুল ইসলামের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়। হাসিবুল ওই এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের বাসায় ভাড়া থাকে। পরে পুলিশ প্রযুক্তির সাহায্যে হাসিবুলের অবস্থান নিশ্চিত হয় এবং গাছা থানার সহযোগিতা নিয়ে কাথোরা এলাকার ওই ভাড়া বাসা থেকে হাসিবুলকে আটক করে। এসময় তার কক্ষ থেকে জিসানের মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। পরে আটক হাসিবুলের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ওই বাসার সেপটিক ট্যাংক থেকে আজ (বৃহস্পতিবার) জিসানের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।

তিনি আরও জানান, পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে হাসিব জানায়, ১২ তারিখ রাতে মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নিয়ে জিসানকে শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ সেপটিক ট্যাংকে ফেলে দেওয়া হয়।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের গাছা থানার ওসি মো. ইসমাইল হোসেন জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

 

/এমএ/

লাইভ

টপ