শতবর্ষী নারীকে ধর্ষণ: কিশোরের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

Send
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৯:৫৪, মে ২৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:০৩, মে ২৪, ২০১৯

 

টাঙ্গাইলটাঙ্গাইলের মধুপুরে শতবর্ষী এক নারীকে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত কিশোর  সোহেল মিয়া (১৪) আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) বিকালে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোহেল জবানবন্দি দেয়। পরে বিচারক সুমন কুমার কর্মকার জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করে সোহেলকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মধুপুর থানার এসআই জুবাইদুল হক এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অপরদিকে একইদিনে ওই ভিকটিম আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নওরীন মাহমুবা তার জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করেন। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মধুপুর থানার এসআই জুবাইদুল হক জানান, ‘গ্রেফতারকৃত আসামি অপরাধ স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়। ভিকটিমও আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ হেফাজতে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।’

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের তত্বাবধায়ক নারায়ণ চন্দ্র সাহা জানান, ‘ভিকটিমকে পুলিশ হেফাজতে হাসপাতালে আনা হয়। পরে তিন সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম গঠন করে তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়।’

প্রসঙ্গত, ভিকটিম উপজেলার ফুলবাগচালা ইউনিয়নের আংগারিয়া গ্রামের বাসিন্দা। অভিযুক্ত সোহেল একই গ্রামের তোতা খা'র ছেলে। গত মঙ্গলবার (২১ মে) সন্ধ্যায় সোহেল মিয়া ওই নারীর ঘরে ঢুকে তাকে মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে। বয়সের ভারে দুর্বল অন্ধ ওই বৃদ্ধা চলাফেরা করতেও পারেন না। মানসম্মানের ভয়ে ভুক্তভোগীর পরিবার তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালেও নেয়নি।

এ ঘটনায় ওই নারীর ছেলে বাদী হয়ে বুধবার (২২ মে) বিকালে মধুপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার পরই ওই রাতেই অভিযুক্ত সোহেলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মামলায় ভিকটিমের বয়স উল্লেখ করা হয়েছে ১৩০ বছর।

আরও পড়ুন- শতবর্ষী অন্ধ নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে কিশোর গ্রেফতার 

/এফএস/

লাইভ

টপ