বাগেরহাটে দুর্ধর্ষ ডাকাতি, বৃদ্ধাকে কুপিয়ে জখম

Send
বাগেরহাট প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:৪৫, মে ২৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:২৩, মে ২৬, ২০১৯

ডাকাতিবাগেরহাট সদর উপজেলার কাড়াপাড়া ইউনিয়নের কাঁঠাল গ্রামে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। রবিবার (২৬ মে) ভোর রাতে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বাগেরহাট মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ডাকাতরা ওই বাড়ির মালিক বৃদ্ধা হামিদা বেগমকে (৬০) কুপিয়ে এবং মাথায় আঘাত করে গুরুতর জখম করেছে।

আহত হামিদা বেগম কাঁঠাল গ্রামের মৃত আবদুল মজিদ পাইকের স্ত্রী। তিনি নাসিমা বেগম (৩৫) ও কামরুন নাহার (৪৬) নামে দুই মেয়ের মা। মেয়েরা শ্বশুরবাড়িতে থাকায় তিনি একাই ওই বাড়িতে থাকতেন। ডাকাতরা কী কী মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে সে বিষয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি।

এ ডাকাতির বিষয়ে কাড়াপাড়া ৪ নম্বর ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ মহিদুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘রবিবার গভীর রাতের কোনও এক সময় ডাকাতির ঘটনা ঘটে। দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে আমি ইউনিয়ন পরিষদে যাওয়ার পথে আহতের ছোট মেয়ে নাসিমার চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে যাই। এ সময় ঘরের মধ্য থেকে তার মায়ের কোনও সাড়া-শব্দ না পেয়ে ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করি। ঘরে ঢুকে হামিদা বেগমকে মেঝের ওপর রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি। তার মাথা ও কপালসহ বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পরে তাকে উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থায় অবনতি হলে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ সময় ঘরের আলমারি ও শোকেস ভাঙাসহ বিভিন্ন মালামাল এলোমেলো অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি।’ 

আহতের বড় জামাই মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘আমার বাড়ি কচুয়া উপজেলার ধোপাখালী গ্রাম থেকে খবর পেয়ে স্ত্রীকে নিয়ে কচুয়া থেকে এসে পৌঁছালে কাউকে এখানে পাইনি। আমরা এসে দেখি ঘরের আলমারিসহ ভাঙা এবং সবকিছু এলোমেলো অবস্থায় পড়ে আছে।’

এ বিষয়ে বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাতাব উদ্দিন বলেন, ‘খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিষয়টি ডাকাতি না অন্যকিছু তা এই মুহূর্তে বলতে পারছি না। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।’

/এমএএ/

লাইভ

টপ