পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রে হামলার শিকার চীনা শ্রমিকের মৃত্যু

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:৩৯, জুন ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:২৩, জুন ১৯, ২০১৯

br1পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার নিশানবাড়িয়ায় পায়রায় ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্রে কর্মরত অবস্থায় একটি বয়লারের ওপর থেকে পড়ে সাবিন্দ্র দাস নামের এক শ্রমিক নিহত হন। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা চীনা কর্মকর্তা ও শ্রমিকদের ওপর হামলা চালায়। এই হামলায় আহত চীনা শ্রমিক জাং ইয়াং ফাং বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। এতে চীনের আরও পাঁচ নাগরিকসহ সাত জন আহত হন। বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার রাম চন্দ্র দাস এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার (১৯ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চীনা শ্রমিকের লাশ প্রজেক্ট ম্যানেজারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার রাম চন্দ্র দাস জানান, ‘মঙ্গলবার বিকালে পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রে কমর্রত অবস্থায় একটি বয়লারের ওপর থেকে পড়ে সাবিন্দ্র দাস নিহত হলে বাঙালি শ্রমিকরা সেখানে কর্মরত চীনা শ্রমিক ও কর্মকর্তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে ছয় চীনা শ্রমিক ও দুই বাঙালি শ্রমিক আহত হন। আহতদের প্রথমে পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও পরে রাত ২টার দিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সোয়া ৩টায় জাং ইয়াং ফাং মারা যান।’

শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন জানান, ‘আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া জাং ইয়াং ফাং এর মাথায় আঘাত ছিল। তার প্রচুর রক্তক্ষরণও হয়েছে। এছাড়া আহত বাকি পাঁচ চীনা নাগরিককে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখান থেকে তাদের স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’

এদিকে চীনা নাগরিক জাং ইয়াং ফাং নিহত হওয়ার ঘটনায় ভবিষ্যতে কোনও মামলা মোকদ্দমা করা হবে না দাবি করে বিনা ময়নাতদন্তে তার লাশ গ্রহণের জন্য বরিশাল জেলার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে আবেদন করেন বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রজেক্ট ম্যানেজার লিউ সি। তার আবেদন মঞ্জুর করে লাশ হস্তান্তর করা হয়। এরপর লাশ নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকায়। 

/এফএস/এমএমজে/

লাইভ

টপ