জোড়া খুনের মামলায় ১৩ জনের যাবজ্জীবন, আদালত থেকেই পালালো এক আসামি

Send
ফরিদপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৬:২৮, জুন ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৪৯, জুন ১৯, ২০১৯

ফরিদপুর

ফরিদপুরের সালথা উপজেলার নটখোলা গ্রামে গঞ্জর খাঁ ও মোসা মোল্লা নামে দুই ব্যক্তিকে খুনের ঘটনায় ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রধান করেছে আদালত। বুধবার (১৯ জুন) দুপুরে ফরিদপুরের বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. মতিয়ার রহমান এই আদেশ দেন। রায়ের পর আদালত চত্বর থেকে আফসার ফকির নামে এক আসামি পালিয়ে গেছে। তাকে ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে।  

পুলিশ জানায়, দণ্ডবিধি ১৮৬০ এর ৩০২/৩৪ ধারায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। রায় ঘোষণার সময় কারাদণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ১১জন আসামি আদালতে হাজির ছিলেন। 

যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত আসামিরা হলো- আব্দুল মান্নান খা, সুরমান খা, মাজেদ খা, ওয়াজেদ খা, রাশেদ খা, সিদ্দিক ফকির, সোহরাব ফকির, আফসার ফকির, ফজলু ফকির, রহমান খা, রেজাউল খা, জিকির ওরফে জিগির খা ও ওসমান ফকির।

সাজাপ্রাপ্তদের মধ্যে জিকির ওরফে জিগির খা এবং সোহরাব পলাতক থাকায় তাদের বিরুদ্ধে সাজা পরওয়ানা ইস্যুর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। তারা গ্রেফতার হওয়ার দিন থেকে দণ্ডাদেশ কার্যকর হবে।

বিশেষ জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম রব্বানী বাবু মৃধা জানান, ২০০৩ সালের ২৩ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৭টায় সালথা উপজেলার নটখোলা গ্রামে পিয়াজের দানা তোলাকে কেন্দ্র করে একটি সালিশ বৈঠক বসে। এরপর কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আসামিপক্ষ গঞ্জর খাঁ ও মোসা মোল্লাকে কুপিয়ে হত্যা করে। পরে নিহতদের ভাই আলাল মিনা বাদী হয়ে সালথা থানায় মোট ২৭ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। আসামিদের মধ্যে ১৩ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছে আদালত। বাকি ১৪ জনকে বেকুসর খালাস প্রদান করা হয়।

ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার ওসি এএফএম নাসিম বলেন, ‘অসাবধানতাবশত একজন আসামি পালিয়ে গেছে। পুলিশ আসামিকে ধরতে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। আশা করছি খুব দ্রুতই তাকে গ্রেফতার করতে পারবো।’

 

 

/এএইচ/

লাইভ

টপ