যুবলীগ নেতা মুনিরুল হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড

Send
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:০৭, জুন ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:২০, জুন ২০, ২০১৯

মৃত্যুদণ্ডচাঁপাইনবাবগঞ্জে যুবলীগ নেতা ও সোনা মসজিদ স্থলবন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ মুনিরুল ইসলাম হত্যা মামলায় ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে তাদের প্রত্যেককে দুই লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। এ মামলায় দুই জনকে জাবজ্জীবন সশ্রম কারাদাণ্ড এবং দুই লাখ টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছর করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।  

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক শওকত আলী এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিল। 

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো—আখেরুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম মুন্সি, তোহরুল ইসলাম ওরফে টুটুল, আব্দুল মালেক, সিরাজুল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম শরিফ, মো. মাসুদ, সিরাজুল ইসলাম সেন্টু ও আব্দুস সালাম। জাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলো— পারুল বেগম ও মো. মাসুদ ওরফে লালচান।  

অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আঞ্জুমান আরা বলেন,‘২০১৪ সালের ২৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় আখেরুলসহ বেশ কয়েকজন দাওয়াত খাওয়ার কথা বলে নিয়ে গিয়ে শিবগঞ্জ স্টেডিয়ামের পেছনে গুলি করে হত্যা করে মুনিরুলকে। পরদিন নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে শিবগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) মতিউর রহমান ২০১৫ সালের ১৫ জুন ১৫ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এ মামলায় ২৩ জন সাক্ষী দেন। রায়ে আমরা সন্তুষ্ট।’

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বাদী রহিমা বেগম বলেন, ‘সোনা মসজিদ স্থল বন্দরের চাঁদার টাকা ভাগ বাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে আমার স্বামীকে হত্যা করা হয়। অ্যাসোসিয়েশনের টাকার অবৈধ ভাগ বাটোয়ারায় রাজি না হওয়ায় মূল পরিকল্পনাকারী টুটুলসহ অন্যরা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।’ রায় বাস্তবায়নের দাবি জানান তিনি।

 

 

/আইএ/

লাইভ

টপ