৫০ হাজার টাকার জন্য জুয়েলারি ব্যবসায়ীকে খুন করে তিন বন্ধু

Send
বরিশাল প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১০:০৯, জুন ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:২২, জুন ২৫, ২০১৯

খুনের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আটক আবুলঋণ শোধের জন্য বড়ি থেকে জমি বিক্রি করে ৫০ হাজার টাকা এনেছিলেন স্বর্ণ ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম। তবে তার আরও টাকার প্রয়োজন ছিল। বিষয়টি তিনি আবুলসহ তিন বন্ধুকে জানান। এরপর বন্ধুরাই ওই ৫০ হাজার টাকার লোভে খুন করে নজরুলকে। এমনটাই জানিয়েছে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার হওয়ার আবুল তালুকদার।  

সোমবার (২৪ জুন) সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান বরিশালের পুলিশ সুপার (এসপি) সাইফুল ইসলাম।

এ ঘটনায় নারায়ণগঞ্জের স্বর্ণ ব্যবসায়ী নজরুলের ছেলে মুন্না চৌধুরী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে ৭ জুন উজিরপুর থানায় হত্যা মামলা করেন। ঘটনার ১৭ দিন পর আবুলকে রবিবার (২৩ জুন) ঢাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত অপর দু’জনকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আবুলের স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে এসপি বলেন, ৭ জুন সন্ধ্যায় উজিরপুরের মুঙ্গাকাঠি গ্রামের একটি পরিত্যক্ত ডোবা থেকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তারা লাশের পরিচয় শনাক্ত করে। এরপর হত্যার ক্লু উদঘাটন করে উজিরপুর থানা পুলিশ। এর সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় আবুলকে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আবুল জানায়, স্বর্ণ ব্যবসায়ী নজরুলের দোকানের পাশেই করতোয়া ও এসআর কুরিয়ার সার্ভিসে শ্রমিকের কাজ করতো আবুল ও তার দুই বন্ধু। একই এলাকায় বসবাসের সুবাধে নজরুলের সঙ্গে তাদের সক্ষতা গড়ে উঠে। নজরুল ব্যবসা করতে গিয়ে ঋণ হয়ে যাওয়ায় মে মাসের শেষের দিকে গ্রামের বাড়ির জমি বিক্রি করে নগদ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে আসেন। আরও টাকার প্রয়োজনের বিষয়টি আবুলসহ বাকি বন্ধুদের জানান তিনি। এসময় আবুল তাকে বলেন, তার স্ত্রী উজিপুরে গ্রামীণ ব্যাংক থেকে ১ লাখ টাকা লোন করে দিতে পারবে। তবে লোন করতে হলে ব্যাংকে আগের পাওনা ৫০ হাজার টাকা জমা দিতে হবে। সে মোতাবেক ২ জুন ঢাকা থেকে তারা চার জন বরিশাল যায়। বিকাল ৫টায় তারা উজিরপুর উপজেলার ইচলাদি বাসস্ট্যান্ডে নামে। কিন্তু নানা অজুহাতে কালক্ষেপণ করে অন্ধকার নামার অপেক্ষা করতে থাকে। পরে সেখান থেকে মাহেন্দ্রা করে মুগাকাঠী মোল্লাবাড়ী নেমে তারা হাঁটতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে ভরতের ভিটায় পরিত্যক্ত বাড়ির জঙ্গলে ঢুকলে নজরুল কিছুটা বিচলতি হয়ে তাদের কাছে জিজ্ঞেস করে তারা কোথায় যাচ্ছে। আবুল বলেন, জঙ্গল পার হলেই তার বাড়ি। কথা বলতে না বলতেই অপর দুই সহযোগী পেছন থেকে গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে নজরুলকে। এরপর তার কাছে থাকা ৫০ হাজার টাকাসহ সবকিছু নিয়ে কচুরিপানা ভর্তি ডোবায় পেট কেটে ডুবিয়ে দেয়।

 

/এসটি/

লাইভ

টপ