শাহবাজপুর সেতুর ওপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়েই চলছে যানবাহন

Send
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:৩৫, জুন ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৪৪, জুন ২৫, ২০১৯

শাহবাজপুরে তিতাস সেতুব্রাহ্মণবাড়িয়ার শাহবাজপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ওপর ঝুঁকিপূর্ণ তিতাস সেতু দিয়ে পুরোদমে যানবাহন চলছে। ঝুঁকিপূর্ণ সেতুর ওপর নতুন করে বেইলি সেতু নির্মাণ করায় ঝুঁকির পরিমাণ আরও বেড়েছে। সড়ক বিভাগ সেতুর ওপর দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তবে তা না মেনে অবাধে পারাপার হচ্ছে পণ্য ও যাত্রীবাহী ভারী যানবাহন।

গত ১৮ জুন মঙ্গলবার বিকালে তিতাস সেতুর রেলিং এবং ফুটপাতের একাংশ ধসে নদীতে পড়ে যায়। এর পর থেকে এই সেতুটির ওপর দিয়ে সব ধরনের ভারী এবং মাঝারি আকারের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। ফলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভোগান্তি পোহাতে হয় যাত্রী ও চালকদের। এ অবস্থায় ঝুঁকির মধ্যেই জোড়াতালি দিয়ে তড়িঘড়ি করে বর্তমান কংক্রিটের সেতুর ওপর আরও একটি বেইলি সেতু নির্মাণ করে সড়ক বিভাগ। সোমবার (২৪ জুন) সকাল থেকে সেতুটি যানবাহন চলাচলের জন্যে উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। ফলে সেতুটির ওপর দিয়ে যানবাহন চলাচলে ঝুঁকি আরও বেড়েছে বলে জানাচ্ছেন যানবাহনের চালকরা।

ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের চালক হাসান মিয়া এবং সিলেটগামী ট্রাকচালক রহিস মিয়া জানান, সেতুর ওপর ওঠার পর ব্রিজটি কাঁপছে। মনে হচ্ছে কখন জানি ভেঙে পড়ে নদীতে।শাহবাজপুরে তিতাস সেতু

শাহবাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাজিব আহমেদ জানান, ‘ঝুঁকি এড়ানোর জন্য সড়ক বিভাগ বা পুলিশের পক্ষ থেকে কোনও তদারকি নেই তিতাস সেতুর ওপর। নেই কোনও ওয়েট স্কেল। যে কারণে যাত্রী ও পণ্যসহই সেতু দিয়ে যাননবাহন চলাচল করছে। ফলে যে কোনও সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।’

ভারী যানবাহন চলাচলের কথা স্বীকার করে সড়ক ও জনপথ বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী জাহিদুর রহমান জানান, ‘ঝুঁকি এড়াতে ২২টনের বেশি ওজনের যানবাহনগুলোকে সেতুর ওপর দিয়ে চলাচল করতে নিষেধ করা হয়েছে। তবে মহাসড়কে ওজন মাপার যন্ত্র না থাকায় ভারী যানবাহন নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না।’

শাহবাজপুর তিতাস সেতুর উত্তর পাশে দায়িত্বরত হাইওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক মো. মনিরুজ্জামান জানান, ‘মহাসড়কের কোথাও যেন যানজট সৃষ্টি না হয় সে জন্য হাইওয়ে পুলিশ তৎপর রয়েছে।’ সেতুর ওপর ভারী যানবাহন নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কে জানতে চাইলে পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, ‘ওজন মাপার যন্ত্র না থাকায় ভারী যানবাহনগুলোকে অনুমানের ওপর ভিত্তি করে মামলা দেওয়ার মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হচ্ছে।’

উল্লেখ্য, স্বাধীনতার আগে ১৯৬৩ সালে শাহবাজপুরে তিতাস নদীর ওপর ২০৩ মিটার দীর্ঘ সেতুটি নির্মাণ করা হয়।

আরও পড়ুন- শাহবাজপুর তিতাস সেতু দিয়ে যান চলাচল শুরু

 

/এফএস/

লাইভ

টপ