পটিয়ায় মাইক্রোবাসের এসির কম্প্রেসার বিস্ফোরণ, শিশুসহ দগ্ধ ১৬

Send
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম
প্রকাশিত : ০৩:৩৬, জুন ২৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১১:১১, জুন ২৬, ২০১৯

চমেক বার্ন ইউনিট (ছবি সংগৃহীত)চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়া এলাকায় একটি মাইক্রোবাসের এসির কম্প্রেসার বিস্ফোরণে গাড়িতে থাকা ১৬ যাত্রী দগ্ধ হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৫ জুন) রাত সাড়ে ১১টার দিকে পটিয়া উপজেলার ডাকবাংলো মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দগ্ধ সবাই সাতকানিয়া উপজেলার ধর্মপুর এলাকার বাসিন্দা।



পটিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। দগ্ধদের ১৬ জনকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

দগ্ধ ১৬ যাত্রী হলেন−মো. রুবেল (২২), মোহাম্মদ মামুন (১৯), মোহাম্মদ আব্দুল আলম (২০), মোহাম্মদ ইদ্রিস (৫০), সাইদুর রহমান (১৬), বেলাল হোসেন (২২), মো. সোহাগ (১৩), মো. হেলাল (২২), মোহাম্মদ আরিফ (১৩), মোহাম্মদ জহির (১৭), তৌহিদুল ইসলাম (২৮), আবুল কালাম (৪৫), আরিফ হোসেন (৩ বছর ৬ মাস), দলোয়ার হোসেন (২০), জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) ও মো. সাদেক (১৫)।

পুলিশ কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মাইক্রোবাসটি চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরে বিদেশগামী এক যাত্রীকে নামিয়ে দিয়ে সাতকানিয়ার উদ্দেশে যাচ্ছিল। পটিয়ার উপজেলার ডাকবাংলো মোড়ে পৌঁছালে হঠাৎ গাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে গাড়িতে আগুন ধরে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দগ্ধ অবস্থায় ওই গাড়ির ১৬ যাত্রীকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে পাঠায়। দগ্ধদের মধ্যে এক শিশুসহ চার জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।’

তিনি আরও বলেন, ‘মাইক্রোবাসের গ্যাস সিলিন্ডার ঠিক আছে। এসির কম্প্রেসার বিস্ফোরিত হয়ে গাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।’ গাড়িটি থানায় নিয়ে আসা হয়েছে বলে তিনি জানান।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত নায়েক আব্দুল হামিদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পটিয়ায় হায়েচ মাইক্রোবাসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ১৬ জনকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। তাদের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। আগুনে দগ্ধদের অধিকাংশের মুখ ঝলসে গেছে।

/টিটি/এমএমজে/

লাইভ

টপ