নারী নাপিত শেফালীকে জমি ও ঘর দিলেন প্রধানমন্ত্রী

Send
ঝালকাঠি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৮:১৩, জুলাই ০২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:২৭, জুলাই ০২, ২০১৯

ঝালকাঠীর শেফালী রানী শীলকে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া জমি ও ঘর বরাদ্দের কাগজপত্র বুঝিয়ে দেন ত্রাণ প্রতিমন্ত্রীঝালকাঠির কাঁঠালিয়ার বলতলা গ্রামে নারী নাপিত শেফালী রানী শীলকে জমি ও ঘর দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান এমপি আজ মঙ্গলবার (২ জুলাই) শেফালী রানীর বাড়িতে গিয়ে তার হাতে জমি ও ঘর বরাদ্দের কাগজপত্র তুলে দেন। 

প্রতিমন্ত্রী এসময় বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন অনুযায়ী বাংলাদেশে কেউ ঘরহীন থাকবে না। সেই লক্ষ্যে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ার একমাত্র নারী নাপিত শেফালী রানী শীলকে নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারিত হওয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তার জন্য চার শতাংশ জমি ও ঘর বরাদ্দের কাগজপত্র নিয়ে তার কাছে এসেছি। কয়েকদিনের মধ্যেই তার ঘর নির্মাণের কাজ শুরু হবে। এ থেকে এটাই প্রমাণ হয় যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সরকার, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার একটি কল্যাণমুখী সরকার। শেখ হাসিনা একজন মানবতাবাদী নেতা, মানবতাবাদী প্রধানমন্ত্রী।’ঝালকাঠীতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শেফালী রানী শীলের বাড়ি যান প্রতিমন্ত্রী। পরে স্থানীয় বলতলার দোগনা বাজারে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন তিনি। ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলীর সভাপতিত্বে সভায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মোহসীন, ঝালকাঠির পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিনসহ জনপ্রতিনিধি, জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা বক্তব্য রাখেন।

ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ার শৌলজালিয়া ইউনিয়নের বলতলা গ্রামের দোগনা বাজারে ক্ষুর, কাচি ও চিরুনি নিয়ে একযুগ ধরে একমাত্র নরসুন্দর হিসেবে চুল কেটে যাচ্ছেন তিনি। মানসিক ভারসাম্যহীন স্বামী যাদব শীল ২০১২ সালে নিরুদ্দেশ হওয়ার পর একটি খুপড়ি ঘরে চার মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে নাপিতের কাজ করেই কষ্টে জীবনযাপন করছেন এবং কোনোমতে তাদের লেখাপড়া ও সংসার চালাচ্ছেন। সংবাদ মাধ্যমে তাকে নিয়ে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী তার পাশে দাঁড়ালেন। 

শেফালী রাণী শীল ও তার মেয়ে সাগরিকা রাণী জানান, তারা ভাবতেই পারেননি যে প্রধানমন্ত্রী তাদের জন্য ঘর বরাদ্দ করবেন। প্রধানমন্ত্রীর এ উদ্যোগে তারা খুব খুশি। তাদের আশা, প্রধানমন্ত্রী যেন বাংলাদেশের সব অসহায় খেটে খাওয়া মানুষদের পাশে দাঁড়ান।

 

/এফএস/

লাইভ

টপ