তীব্র স্রোতের কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত

Send
মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:৪৬, জুলাই ১৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:৩১, জুলাই ১৮, ২০১৯

পাটুরিয়া ঘাটে আটকে আছে শত শত গাড়িদেশের দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার যাতায়াতের অন্যতম রুট পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ফেরি সার্ভিস। এই রুটে প্রবল স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল মারাত্মক বিঘ্নিত হচ্ছে। ফেরিগুলো স্রোতের বিপরীতে চলতে হিমশিম খাচ্ছে। স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে এখন তিনগুণ সময় বেশি লাগছে। যে কারণে ঘাট এলাকায় আটকে আছে চার শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক ও কার্ভাড ভ্যান। এই পরিস্থিতিতে গড়ে প্রতিটি পণ্যবাহী ট্রাক ঘাট পার হতে দুই থেকে তিন দিন লেগে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা এরিয়া অফিসের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) মো. আজমল হোসেন পাটুরিয়া ফেরিঘাট অভিমুখে আসার আগে খোঁজ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি জানান, এই মুহূর্তে পাটুরিয়া ঘাটের দুটি টার্মিনালে চার শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক আটকে আছে। যাত্রীবাহী বাস অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পার করা হচ্ছে। যে কারণে পণ্যবাহী ট্রাকগুলো কম পার হচ্ছে। এছাড়া ঘাটের নাজুক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে পণ্যবাহী ট্রাকগুলো পুলিশের সহায়তায় আটকে রাখা হয়েছে।

বর্তমান পরিস্থিতি

তিন থেকে চার দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করেও নৌরুট পারাপারের সুযোগ পাচ্ছে না পাটুরিয়া ট্রাক টার্মনালে আটকে থাকা ট্রাকগুলো। পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকার ট্রাক টার্মিনাল কানায় কানায় পরিপূর্ণ রয়েছে। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পাটুরিয়া ঘাট থেকে ৩৭ কিলোমিটার দূরে মহাসড়কের ধামরাই উপজেলার বাথুলী ওয়েট স্কেল, মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার জাগীর এলাকার পুলিশ চেকপোস্ট এবং উথুলী বাসস্ট্যান্ডের পশ্চিম পাশে আরিচা সংযোগ সড়কে কয়েক শ’ ঘাটমুখী পণ্যবাহী ট্রাককে আটকে রাখা হয়েছে।

গোলড়া হাইওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লুৎফর রহমান জানান, পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় যানবাহনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে মহাসড়কে পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে আটকে রাখা হচ্ছে।   

বিআইডব্লিউটিসির পাটুরিয়া ঘাটের মেরিন বিভাগের সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. আবদুস সোবাহান জানান, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে নদীতে দ্রুত পানি বৃদ্ধি ও প্রবল স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এছাড়া স্রোত ফেরিকে মূল চ্যানেল থেকে দুই-তিন কিলোমিটার ভাটিতে নিয়ে যাচ্ছে। এতে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে বেশি সময় লাগছে। বিশেষ করে দৌলতদিয়া পয়েন্টে নদীর স্রোতের গতিবেগ সবচেয়ে বেশি। এ কারণে ফেরির ট্রিপ সংখ্যাও কমে গেছে।  

ফেরি মেরামতের ভাসমান কারখানার নির্বাহী প্রকৌশলী স্বদেশ প্রসাদ মণ্ডল বলেন, ‘পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে যে ফেরিগুলো আছে তার অধিকাংশই পুরনো। স্রোতের বিপরীতে চলতে গিয়ে মাঝেমধ্যেই ফেরি বিকল হয়ে পড়ছে। ছোট ফেরি স্রোতের প্রতিকূলে চলতেই পারছে না। তবে ফেরি মেরামতে সাধ্যমতো চেষ্টা করা হচ্ছে।’

পাটুরিয়া ঘাট পুলিশ কন্ট্রোল রুমের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আরাফাত রাসেল বলেন, ‘নদীতে তীব্র স্রোত এবং ফেরি সংকটের চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। পানি বাড়ার ফলে পন্টুন ডুবে যাচ্ছে। এ কারণে প্রতিদিনই পন্টুন সরিয়ে উপরে ওঠানো হচ্ছে। ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় ঘাটে বিপুলসংখ্যক গাড়ি আটকা পড়েছে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস ও ছোট গাড়ি পার করা হচ্ছে। আটকা পড়ছে ছয়শ’ পণ্যবাহী ট্রাক। পচনশীল, জরুরি পণ্য এবং শিশুখাদ্য বহনকারী ট্রাক ছাড়া অন্য ট্রাক পারাপার বন্ধ রাখা হয়েছে।’

পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম বলেন, ‘যানজট এড়াতে এবং যাত্রীসাধারণের সুবিধার্থে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস ও ছোট গাড়ি পারাপার করা হচ্ছে। ট্রাক টার্মিনালে এবং ঢাকা পাটুরিয়া মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ট্রাক আটকে রাখা হয়েছে। গত তিন দিন ধরে ট্রাক পারাপার সীমিত রাখা হয়েছে। এখনও ট্রাক আসছে। ফলে সমস্যা আরও বাড়ছে। এ কারণে তিনি তাদের বিকল্প পথ ব্যবহার করতে অনুরোধ করেছেন।

/এমএএ/

লাইভ

টপ