মৌলভীবাজারে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে অজ্ঞাত ব্যক্তি নিহত

Send
মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৫:১৩, জুলাই ২১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৫:২২, জুলাই ২১, ২০১৯

 

গণপিটুনিতে নিহতকমলগঞ্জ উপজেলা রহিমপুর ইউনিয়নের দেওড়াছড়া চা বাগান এলাকায় ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে এক অজ্ঞাত (৫৫) ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শনিবার (২০ জুলাই) রাত ১১টার দিকে উপজেলার দেওড়াছড়া চা বাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কমলগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক সুসেন দাস গণপিটুনিতে নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, চা বাগান এলাকায় অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি সন্দেহজনকভাবে ঘুরাফেরা করছিলেন। এ অবস্থা দেখে স্থানীয় চা শ্রমিকরা তার পরিচয় জানতে চায়। তবে ওই ব্যক্তি সঠিক তথ্য দিতে না পারায় ছেলেধরা সন্দেহে চা শ্রমিকরা তাকে গণপিটুনি দেয়। এতে তার মৃত্যু হয়।

দেওড়াছড়া চা বাগানের মেডিক্যাল সুপারভাইজার গোপাল দেব জানান, চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি রক্তাক্ত অবস্থায় এক ব্যক্তি পড়ে আছেন। পরে উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই ব্যক্তিকে মৃত ঘোষণা করেন।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, নিহত ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া যায়নি। পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে আছি।

শিশু নাদিমএদিকে, ১৯ জুলাই বিকালে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী শামসুল হুদা নাদিম ভুরভুরিয়া চা বাগান এলাকার খেলার মাঠ থেকে নিখোঁজ হয়। নাদিম নিখোঁজের ঘটনায় শ্রীমঙ্গল শহরতলীতে অভিভাবকদের মধ্য ‘শিশুদের কল্লাকাটা’ আতংক ছড়িয়ে পড়ে। পরে শনিবার বিকালে কুমিল্লার রেলস্টেশন থেকে নাদিমকে উদ্ধার করে পুলিশ। শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুস ছালেক জানান, নাদিম সুস্থ আছে। সে জানিয়েছে দুই অজ্ঞাত ব্যক্তি তাকে ধরে নিয়ে গিয়েছিল।

/টিটি/

লাইভ

টপ