ইজিবাইক ছিনতাইকালে পাঁচ যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

Send
বাগেরহাট প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৪:১৯, জুলাই ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:২৮, জুলাই ২২, ২০১৯

বাগেরহাটে ইজিবাইক ছিনতাইকালে পাঁচ যুবককে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দবাগেরহাটের চিতলমারীতে চালককে অচেতন করে ইজিবাইক ছিনতাইকালে পাঁচ যুবককে গণধোলাই দিয়েছে স্থানীয়রা। চিতলমারী  সদর বাজারের বোয়ালিয়া ভ্যান স্ট্যান্ড থেকে রবিবার দুপুরে স্থানীয় জনতা তাদের ধরে ‘গলাকাটা দল’ মনে করে ধরে গণধোলাই দেয়। পুলিশ ওই চক্রের সঙ্গে থাকা একটি প্রাইভেট কার উদ্ধার করেছে।

আটককৃতরা হচ্ছেন- ঢাকার আশুলিয়ার কাঠগড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে মো. রুবেল মিয়া (২৮), গোপালগঞ্জের চাপুলিয়া গ্রামের আজাদ মুন্সীর ছেলে রাসেল মুন্সি (২৮), নড়াইল জেলার চাপুলিয়া গ্রামের লিয়াকত মুন্সীর ছেলে রুবেল মুন্সী (২৮), ঝিনাইদাহ জেলার টিয়াদা গ্রামের সামছুদ্দিন শেখের ছেলে আব্দুর রহমান (৪৭) ও পাবনা জেলার ফরিদপুর উপজেলার ধানুয়াঘাটা গ্রামের হাজী নুর মোহাম্মদের ছেলে ফরিদ আহম্মেদ (২৯)।

আটককৃত এই যুবকরা ‘গলাকাটা দল’ বলে গোটা এলাকায় গুজব ছড়িয়ে পড়ে। তাদের দেখার জন্য বিভিন্ন গ্রাম থেকে দলে দলে সাধারণ মানুষ থানায় ছুটে আসেন। এই ঘটনার পর এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

উপজেলার শৈলদাহ গ্রামের আইয়ুব আলী শেখের ছেলে মো. জাকির শেখ জানান, তার জামাতা ওমর শেখকে অচেতন করার স্প্রে দিয়ে অজ্ঞান করে তার ইজিবাইক ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে ওই যুবকেরা। খবর পেয়ে জনতা তাদের ধরে পুলিশে দেয়। অসুস্থ অবস্থায় ওমর শেখকে (২১) চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

চিতলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আলমগীর হোসেন জানান, অজ্ঞান অবস্থায় ওমর শেখকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ওমর শেখ জানান, মাটিভাঙ্গা কলেজ থেকে পাঁচ ছাত্রীকে তার ইজিবাইকে নিয়ে চিতলমারীর দিকে রওনা দেন। তিন ছাত্রী বাংলাবাজার মোড়ে নেমে যান। সেখান থেকে একজন চশমা পরা যুবক তার ইজিবাইকে চড়ে বসে। আমবাড়ি বাজার থেকে আরও এক যুবক ইজিবাইকে চড়ে। চর-শৈলদাহ গ্রামে পৌঁছালে বাকি দুই ছাত্রী নেমে যান। সে সময় গাড়িতে থাকা দুই যুবক তার কাছ ইজিবাইকের চাবি চায়। এমন সময় প্রাইভেট কার দিয়ে ইজিবাইকের পথ আটকে দাঁড়ায় আরও তিনজন। গাড়ির ভেতর থেকে তারা বেরিয়ে এসে তার চোখে-মুখে স্প্রে করে। চেতনা হারানোর আগ মুহূর্তে তাদের পাশ থেকে একটি মোটরসাইকেল যাওয়ার সময় ওমর শেখ চিৎকার করে তাকে বাঁচানোর আকুতি জানান। মোটরসাইকেল চালক স্থানীয় মানুষদের জড়ো করার চেষ্টাকালে পাঁচ যুবক তাদের প্রাইভেট কারে চড়ে পালায়। কিন্তু চিতলমারী সদর বাজারের বোয়ালিয়া ভ্যানস্ট্যান্ডের সামনে জনসাধারণ তাদের গতিরোধ করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

চিতলমারী থানার উপ-পরিদর্শক দেবব্রত কুমার জানান, স্থানীয়রা সন্দেহভাজন পাঁচ যুবক ও একটি প্রাইভেট কার ধরে পুলিশের কাছে দিয়েছে।

 

/এফএস/

লাইভ

টপ