যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায়ের দায়ে জরিমানা

Send
মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:২০, আগস্ট ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:২৬, আগস্ট ১৭, ২০১৯





পাটুরিয়া ঘাটে ঢাকামুখী মানুষের ভিড়মানিকগঞ্জে ঈদ ফেরত যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে একজনের কারাদণ্ডসহ ৯৫ পরিবহনকে দুই লাখ ৩৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ ও মোটরযান অধ্যাদেশ-১৯৮৩ অনুযায়ী এই জরিমানা করা হয়।


শনিবার (১৭ আগস্ট) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট শেখ মো. আলাওল ইসলাম ও এসএম আবু দারদা মানিকগঞ্জ সদর বাসস্ট্যান্ড থেকে জাগীর এলাকা পর্যন্ত ঢাকা আরিচা মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় যাত্রীসেবা, সেলফি, নীলাচল, হিমাচল, পদ্মা লাইনসহ বিভিন্ন পরিবহনকে ১৩টি মামলায় মোট ৫১ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া ২০টির বেশি বাসের প্রায় ৩৫০ যাত্রীর কাছ থেকে আদায় করা অতিরিক্ত ২২ হাজার ৫০০ টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হয়। এ সময় জেলা পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা সহযোগিতা করেন।
মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মশিউর রহমান খান জানান, জেলা প্রশাসকের সার্বিক নির্দেশনায় ঈদে কর্মস্থল ফেরত মানুষের কাছ থেকে বিভিন্ন গণপরিবহন যেন অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করতে না পারে এ জন্যই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।
এর আগে শুক্রবার (১৬ আগস্ট) দিনভর ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড থেকে জাগীর পর্যন্ত কয়েকটি স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট চৈতী সর্ববিদ্যা, মো. বিল্লাল হোসেন, মো. আলাওল ইসলাম, আতিকুল ইসলাম, এসএম আবু দারদা উপস্থিত থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে এসি লিংক, সেলফি, নীলাচল, পদ্মা লাইনসহ বিভিন্ন পরিবহনকে ৪০টি মামলায় মোট ৭৬ হাজার পাঁচশ টাকা জরিমানা করেন। এছাড়াও ৫০টির বেশি বাসের যাত্রীদের কাছ থেকে আদায় করা অতিরিক্ত ভাড়া ফিরিয়ে দেওয়া হয়।
এদিকে, শিবালয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার এএফএম ফিরোজ মাহমুদ ও শিবালয়ের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেন শিবালয় প্রান্তের পাটুরিয়া লঞ্চঘাট এলাকায় পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় তারা অতিরিক্তি ভাড়া আদায়ের দায়ে এক লাখ সাড়ে ছয় হাজার টাকা জরিমানা ও একজন চালককে ছয় দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।
এএফএম ফিরোজ মাহমুদ জানান, শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তার নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে নীলাচল, সেলফি, শুভযাত্রা, লাক্সারিসহ ২৫টি পরিবহনকে ৪৪ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ড্রাইভিং লাইসেন্স, গাড়ির কোনও কাগজপত্র না থাকা ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের কারণে নিরাপদ পরিবহনের চালক মো. মিরাজুলকে (২৪) সাত দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। মিরাজুল ঢাকার ধামরাই উপজেলার শুয়াপুর গ্রামের এখলাছ মিয়ার ছেলে।
অপরদিকে, শিবালয়ের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেন পাটুরিয়া ও আরিচা থেকে ঢাকাগামী পরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় প্রতিরোধে এবং যাত্রীসেবা নিশ্চিতকরণে শিবালয়ে মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে শুক্রবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। এ সময় তিনি অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, ফিটনেস ও লাইসেন্সবিহীন গাড়ি চালানো ও আদেশ অমান্যসহ বিভিন্ন অপরাধে নীলাচল, যাত্রীসেবা, আশুলিয়া ক্লাসিক, স্বপ্ন পরিবহন, গুলিস্তান-ধামরাই, সেলফি পরিবহন, পলাশ পরিবহন, এনএনবি পরিবহন, লাক্সারি এনএনবি, স্বপ্ন পরিবহনসহ ১৭টি পরিবহনকে বিভিন্ন অপরাধে ৬২ হাজার পাঁচশ টাকা অর্থদণ্ড দেন।

/আইএ/

লাইভ

টপ