বাল্যবিয়ের দুই মাস পর বর ও তার মায়ের জেল

Send
মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৩:২২, আগস্ট ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৩২, আগস্ট ১৯, ২০১৯

কারাদণ্ড

গোপনে বাল্যবিয়ে করেও রক্ষা পেলেন না রনি (২২) নামে এক তরুণ। বিয়ের দুই মাস পর বাল্যবিয়ে করার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালত বর ও তার মাকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলায়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ কথা জানান।

বরের বাড়ি ঘিওর পূর্বপাড়া গ্রামে। সে ঢাকার একটি প্রিন্টিং প্রেসে কাজ করে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, পাত্রীর (১৪) বয়স গোপন করে বাল্যবিয়ের সংবাদ পেয়ে গত ১৮ আগস্ট রাত ১১টার দিকে রনির বাড়িতে হাজির হন ঘিওর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আইরিন আক্তার। এসময় বিয়ের যথাযথ কাগজপত্র দেখাতে না পারায় এবং বাল্যবিয়ে করার অভিযোগে বর রনিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। একই সঙ্গে অভিভাবক হিসেবে উপস্থিত থেকে বাল্যবিয়ে করানোয় বরের মাকেও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন তিনি।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আইরিন আক্তার বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, তার কাছে অভিযোগ ছিল চলতি বছরের ১২ জুন নবম শ্রেণির  এক ছাত্রীকে বিয়ের নামে জোড়পূর্বক আটকে রেখেছে রনি নামে এক যুবক। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অভিযান পরিচালনা করে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে তার বোন জামাইয়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান।

 

/জেবি/

লাইভ

টপ