‘ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মানুষদের অবাধ চলাচলে বাধা নেই’

Send
নওগাঁ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০১:৩১, সেপ্টেম্বর ০১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৮, সেপ্টেম্বর ০১, ২০১৯

নওগাঁয় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও দলিতদের অধিকার রক্ষার কর্মশালায় বক্তব্য রাখছেন জেলা প্রশাসক হারুন- অর -রশীদ

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও দলিত সম্প্রদায়ের মানুষের অধিকার রক্ষায় সরকার সব ধরনের ব্যবস্থা নিচ্ছে। স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে তাদের অবাধে চলাচল ও সব হোটেল-রেস্তোরাঁয় প্রবেশের অধিকার আছে। নওগাঁর ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও দলিত সম্প্রদায়ের মানুষরা যাতে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার করতে পারে এবং হোটেল-রেস্তোরাঁসহ সবখানে অবাধে চলাচল করতে পারে সে ব্যাপারে জেলা প্রশাসন উদ্যোগ নেবে। জেলার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও দলিত সম্প্রদায়ের অধিকার বিষয়ক এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেছেন জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদ।

শনিবার (৩১ আগস্ট) বেলা ১১টায় শহরের কেডি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট: সমতলের আদিবাসী ও দলিত সম্প্রদায়ের অবস্থানের তুলনামূলক বিশ্লেষণ’ শিরোনামের কর্মশালায় আলোচকরা বিভিন্ন সুপারিশ তুলে ধরেন।

এরপর জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদ বলেন, জেলা ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মানুষদের স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানার ব্যবস্থা করে দিয়ে এর ব্যবহার শতভাগ নিশ্চিত করা হবে। তারা কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে গিয়ে যাতে চিকিৎসা সেবা নিতে পারে সে ব্যাপারেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কর্মশালায় অভিযোগ করা হয়, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মানুষদের এখনও অনেক রেস্তোরাঁয় প্রবেশে বাধা দেওয়া হয়। এই অভিযোগের জবাবে জেলা প্রশাসক বলেন, স্বাধীন দেশের মানুষ হিসেবে তাদেরও অন্য সবার মতো একই সমান অধিকার। তাই অবাধে প্রবেশের সুযোগ আছে এমন কোনও স্থানে ঢুকতে তাদের কেউ বাধা দিতে পারে না। বিভিন্ন হোটেল রেস্তোরাঁয় তারা যেন অবাধে যাতায়াত করতে পারে সে ব্যাপারে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন পল্লী সহযোগী বিষয়ক সংস্থার (আরকো) নির্বাহী পরিচালক সজল কুমার চৌধুরী। আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাহবুবুর রহমান, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা উত্তম কুমার দাস, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফিরোজ আহমেদ, জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি নবীর উদ্দিন, নওগাঁ সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ শরিফুল ইসলাম খাঁন, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন একুশে পরিষদের সভাপতি এ্যাড. ডিএম আব্দুল বারী, আরকোর প্রধান প্রতিনিধি শেখর চক্রবর্ত্তী পার্থ, অ্যাডভোকেসি কর্মকর্তা নাইস পারভীন প্রমুখ।

/টিএন/

লাইভ

টপ