‘পুলিশের ওপর হামলায় ব্যবহৃত বোমার সঙ্গে উদ্ধার হওয়া বিস্ফোরকের মিল রয়েছে’

Send
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৩:১৪, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৩৬, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৯

ডিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেছেন, ‘নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালিয়ে ডেটোনেটরসহ বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়েছে। সম্প্রতি ঢাকার খামারবাড়ি, মালিবাগ, সায়েন্স ল্যাবে পুলিশের ওপর যে বোমা হামলা হয়েছিল, তার সঙ্গে এই জঙ্গি আস্তানা থেকে উদ্ধার হওয়া বিস্ফোরকের মিল রয়েছে। সেগুলো ধ্বংস করার প্রক্রিয়া চলছে।’

সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ফতুল্লায় জঙ্গি আস্তানার সামনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব তথ্য জানান।

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘রবিবার রাতে ঢাকা থেকে মিজানুর রহমান ওরফে রফিককে আটক করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার তক্কার মাঠ এলাকায় বাংলাদেশ ব্যাংকের অবসরপ্রাপ্ত উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) জয়নাল আবেদিনের বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। সেখান থেকে তার ভাই ফরিদ উদ্দিন রুমিকে আটক করা হয়। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ফরিদের স্ত্রী জান্নাতুল ফোয়ারা অনুকে আটক করা হয়।’ আটক ফরিদ ও রফিক নব্য জেএমবির সদস্য বলে জানান তিনি।

মনিরুল ইসলাম আরও বলেন, ‘অন্যান্য জঙ্গি আস্তানায় যে ধরনের ল্যাব বা কারখানার সন্ধান মিলেছে সেগুলোর চেয়ে এটি ব্যতিক্রম। এখানে ডেটোনেটরসহ বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক পাওয়া গেছে। দুই ভাই এই আস্তানাটিতে বেশ কিছুদিন ধরে অবস্থান নিয়ে বিস্ফোরক তৈরি করছিল।’

আটক দুই জনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এই নেটওয়ার্কের আরও কয়েকজন সদস্যের নাম পাওয়া গেছে। তাদের আইনের আওতায় আনার জন্য কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের একাধিক ইউনিট কাজ করছে বলে জানান ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজমের প্রধান।

আরও পড়ুন: 
ফতুল্লায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে পুলিশ

/এআর/এমএমজে/

লাইভ

টপ