খুলনায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম যুবকের মৃত্যু

Send
খুলনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০৭:০৪, অক্টোবর ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৭:১৩, অক্টোবর ১৬, ২০১৯

লাশখুলনার দিঘলিয়া উপজেলার পদ্মবিলা গ্রামে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে যখম হায়বাত আলী (৩০) মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। তিনি পদ্মবিলার সাত্তার শেখের ছেলে। গত ১৪ অক্টোবর রাতে তাকে কুপিয়ে জখম করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, ১৪ অক্টাবর রাত ৯টার দিকে হায়বাত পদ্মবিলা গ্রামের সরদার বাড়ি খালের পাড়ের রাস্তা দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় ১০-১২ জনের একটি দল ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথা ও পায়ে কুপিয়ে জখম করে। এসময় এলাকাবাসী ধাওয়া করে স্থানীয় আরিফ সরদারের ছেলে জসিম সরদারকে ধরে ফেলেন। তারা হায়বাতকে মুমূর্ষু অবস্থায় খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। রাতে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১২টায় তিনি মারা যান।

দিঘলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মানস রঞ্জন দাস জানিয়েছেন, মোবাইল চুরির একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই খুন। হায়বাতের একটি মোবাইল চুরি হয়েছিল। একজনকে চুরির অপবাদ দেওয়ায় তারা হায়বাতের ওপর হামলা করেছে।

নিহতের চাচাতো ভাই ওয়ার্ড মেম্বর ইরান শেখ জানান, গত ৬ সেপ্টেম্বর হায়বাতের চাচা টিপু সুলতানকে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা দিনের বেলায় নির্মমভাব কুপিয়ে হত্যা করে। ওই হত্যাকাণ্ডে দায়ের করা মামলার পালাতক আসামিরা সংঘবদ্ধ হয়ে হায়বাতকে কুপিয়েছে বলে আমরা মনে করছি। মত্যুর আগে হায়বাত হামলাকারীদের নাম বলে গেছে বলেও জানান তিনি।

 

/আইএ/

লাইভ

টপ