রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ, আটক ৩

Send
নওগাঁ প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১২:১৬, অক্টোবর ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫, অক্টোবর ২০, ২০১৯

গ্রেফতার

নওগাঁর মহাদেবপুরে এক গৃহবধূকে রাস্তা থেকে ধরে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে তিন জনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার সরস্বতীপুর বাজারে অনন্যা-বর্ষা চালকল চাতালে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে একটি মহল।

আটক ব্যক্তিরা হলো উপজেলার চকরাজা গ্রামের আফাজ উদ্দীনের ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৩৬), রহিমের ছেলে মিঠু (৩৮) ও মৃত কসতুলের ছেলে বাবু (৪০)।

ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, ভুক্তভোগী গৃহবধূ তার বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ি যাওয়ার জন্য সরস্বতীপুর বাজারে সন্ধ্যার দিকে নামেন। সেখান থেকে হেঁটে বাড়ি যাওয়ার পথে তাকে ধরে বাজারের পাশে পরিত্যক্ত অনন্যা-বর্ষা চালকলের চাতালে নিয়ে তিন জন ধর্ষণ করে। এসময় চালকলের রাস্তার পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় পথচারীরা তার কান্নার শব্দ শুনে ভেতরে ঢুকলে ধর্ষকরা পালিয়ে গেলেও সিরাজুল (৩৬) নামে এক ধর্ষককে আটক করা হয়। পরে ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয় এবং সিরাজুলকে তাদের বাড়িতে নিয়ে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়।

তারা আরও জানায়, ঘটনার পরদিন শুক্রবার ভুক্তভোগীর স্বামী বিচারের দাবিতে গ্রামের মাতব্বরদের কাছে গেলে সিরাজুলের লোকজন ঘরের তালা ভেঙে তাকে নিয়ে যায়। ঘটনার পর স্থানীয় একটি মহল মোটা অংকের টাকা দিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে। শেষ পর্যন্ত তারা থানায় অভিযোগ করেছে।

শনিবার রাতে নওহাটা মোড় পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই ফরিদ জানান, তিনি ফোর্স নিয়ে ভুক্তভোগীর এলাকায় গিয়ে ঘটনার সত্যতা পেয়েছেন। পরে ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিনজনকে আটক করে মহাদেবপুর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

মহাদেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল বলেন, ‘ঘটনাটি নিয়ে ভুক্তভোগীর পরিবারের সঙ্গে গোপনে আপসের চেষ্টা করা হচ্ছিল। কিন্তু তারা আপস করতে চাচ্ছিল না। পরে বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশ পাঠিয়ে ভুক্তভোগীকে উদ্ধার ও ঘটনার সঙ্গে জড়িত তিন জনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনায় ভুক্তভোগীরা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। রবিবার ভুক্তভোগীকে পরীক্ষার জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

/জেবি/এমএমজে/

লাইভ

টপ